কলকাতা: রাজের আগামী ছবি ‘আম্মা’য় অভিনয় করছেন পার্নো মৈত্র। সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া পার্নোকে নিজের ছবিতে জায়গা দিয়ে মমতা ঘনিষ্ঠ রাজ চক্রবর্তী জল্পনার শীর্ষে পৌঁছেছিলেন। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, রাজও নাকি বিজেপির দিকে পা বাড়াতে চলেছেন। এমন জল্পনা কার্যত ধূলিস্মাত হয়ে গেল। উলটে বর্ষীয়ান অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে রাজকেই কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের চেয়ারম্যান করা হল।

সহ-চেয়ারম্যানের পদে থাকছেন ইন্দ্রনীল সেন। কমিটির মুখ্য উপদেষ্টা মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। ঘটনার জেরে শাসক দলের সঙ্গে রাজের ঘনিষ্ঠতা ফের প্রকাশ্যে এল। শুক্রবার উৎসব কমিটির উপদেশক পর্ষদের তালিকা প্রকাশিত হয়। তালিকায় নাম থাকলেও প্রসেনজিৎ এবার চেয়ারম্যান নন। তাঁর জায়গায় নতুন চেয়ারম্যান করা হল পরিচালক রাজ চক্রবর্তীকে। রাজ অবশ্য ‘বুম্বাদা’কে সরানোর ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে তিনি কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবকে আরও উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে দায়বদ্ধ হয়েছেন।

কমিটিতে রয়েছেন অপর্ণা সেন, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, গৌতম ঘোষ, সন্দীপ রায়, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, রঞ্জিত মল্লিক, অরিন্দম শীল প্রমুখ। কিছুদিন আগেই বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সাক্ষাৎ হয়। অনেকে মনে করছেন সাম্প্রতিক ধারা অনুযায়ী অভিনেতা প্রসেনজিৎ বিজেপিতে যোগ দেবেন। টলিউডের একাধিক কালাকুশলী ইতিমধ্যেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। সে জন্যই এমন জল্পনা তৈরি হয়। অপর্ণা সেন অবশ্য এই ধারাকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘এরা ডুবন্ত জাহাজ ছেড়ে পালাচ্ছে’।

তবে, মুকুল রায়ের সঙ্গে সাক্ষাতের জেরেই কি চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরতে হল প্রসেনজিতকে? এই নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ব্যস্ততার কারণে মিটিঙে উপস্থিত থাকতে পারেননি প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। পরে তিনি চেয়ারম্যান বদল প্রসঙ্গে মুখ খোলেন। তাঁকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে, সে কথা অফিশিয়ালি জানানো হয়নি বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রসেনজিৎ। তাঁকে এ খবর পেতে হয়েছে মিডিয়ার মাধ্যমে।

তবে তিনি প্রয়োজনে রাজ চক্রবর্তীকে সব রকম সহযোগিতা করবেন বলে জানান। কমিটিতে অপর্ণা সেনের নাম দেখে অনেকেই চমকে গিয়েছেন। এর আগে কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবের কমিটিতে দেখা যায়নি তাঁকে। সরকার বিরোধী মুখ হিসেবে তিনি এই মুহূর্তে পরিচিত। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে কমিটিতে অপর্ণা সেনের নাম থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে নানা মহলে।