স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি : নবমীর সকাল থেকে মুখ ভার ছিলো আকাশের। রবিবার জলপাইগুড়িতে সকাল থেকে শুরু হয়েছিলো হাল্কা ঝিরঝিরে বৃষ্টি । কিন্তু বেলা গড়াতেই শুরু হল মুশলধারায় বৃষ্টি। ফলে নবমীর বিকেলে পুজো দেখার পাশাপাশি প্যান্ডেল হপিং এবার মাটি হয়ে যাওয়ার পথে।

জলপাইগুড়ি কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, নিম্নচাপের প্রভাবে আগামীকাল পর্যন্ত তিস্তা অববাহিকায় হাল্কা বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। অপরদিকে কোচবিহার ও আলিপুর দুয়ার জেলার আগামী ২৪ ঘন্টায় হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।

করোনা আতঙ্কে এবার এমনিতেই পূজোর চেনা ভিড় উধাও হয়ে গিয়োছিল। যদিও নবমীর দিন বেলার দিকে কেউ কেউ টোটোয় চেপে পূজো দেখতে বের হন। তাই হাতে গোনা দু চারজনের দেখা মিলছিলো পূজো মন্ডব গুলিতে। কিন্তু দুপুরের পর থেকে মুশলধারায় বৃষ্টি শুরু হওয়ায় রাস্তাঘাট একেবারে শুনশান হয়ে গেছে।

প্রসুন বাগচী নামে জলপাইগুড়িরর এক পূজো উদ্যোক্তা জানালেন অন্যান্য বছরের তুলনায় এবারে দর্শনার্থীদের সংখ্যা একেবারে কম। সকাল থেকে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। নবমীর দিন গৃহবন্দী থাকায় বাচ্চাদের মন খুব খারাপ হয়ে গেছে। কিন্তু করোনা সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে বৃষ্টি মাথায় করে লোক পুজো দেখতে বের হতে চাইবে না। ফলে সংক্রমণ অনেকটা কম ছড়াবে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।