বেঙ্গালুরু: এমনিতেই বানভাসি কর্ণাটক। জল ক্রমশ যন্ত্রণায় পরিণত হচ্ছে কর্ণাটকবাসীর জীবনে। তার উপর রবিবার মৌসম ভবন ফের জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় উপকূলীয় কর্ণাটক সম্মুখীন হবে ভারী বৃষ্টির। সেই সঙ্গে কর্ণাটকের দক্ষিণাংশেও ভারী বৃষ্টি হবে বলে জানা গিয়েছে।

বেশ কয়েকদিন ধরেই প্রবল বর্ষণে ভাসছে উত্তর-পশ্চিম ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্য। কর্ণাটক ও কেরালা রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারন করছে। আপাতত বৃষ্টি কমার কোনও সম্ভাবনা দেখছে না দিল্লির আবহাওয়া অফিস। উত্তর ভারতের দিল্লী, রাজস্থান, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, মধ্যপ্রদেশ, পঞ্জাব এবং বাকি রাজ্যগুলিতে আগামী দুদিন প্রবল বৃষ্টি হওয়ার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। উত্তরের এই রাজ্যগুলিতে বৃষ্টি চলবে আগামী ২০ অগস্ট পর্যন্ত।

সর্বভারতীয় আবহাওয়া দফতরের(আইএমডি) অফিসার গত শুক্রবার জানিয়েছেন, উত্তর-পশ্চিমের মধ্যপ্রদেশ এবং দক্ষিন-পশ্চিমের উত্তরপ্রদেশের উপর আপাতত গভীর নিম্মচাপ স্থায়ী হওয়ায় আগামী ৪৮ ঘণ্টায় এই রাজ্যগুলিতে ভারী বৃষ্টি হবে। এই নিম্মচাপের কারনে আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দিল্লী, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব প্রভৃতি রাজ্যগুলিতে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হবার সম্ভবনার কথাও জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

শুক্র ও শনিবার পশ্চিমবঙ্গ, সিকিম, আসাম ও মেঘালয় এই রাজ্যগুলিতে ভারী বৃষ্টি হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। ইতিমধ্যেই গতকাল থেকে সারাদিন ধরে হালকা থেকে ভারী বৃষ্টি এবং সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হয়েছে মধ্যপ্রদেশ, গোয়া, কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র, নাগাল্যান্ড, মিজোরাম, মনিপুর, অসাম, গুজরাত, সিকিম, পশ্চিমবঙ্গ, আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, পঞ্জাব, উত্তরাখণ্ড, বিহার ও অরুণাচল প্রদেশ প্রভৃতি রাজ্যগুলিতে।

এছাড়া হিমাচল প্রদেশের বন্যা পরিস্থিতি অকল্পনীয়। সেখানে জলবন্দী অবস্থার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন মানুষজন। জলের তলায় চলে গিয়েছে মান্দির পঞ্চভাক্তরা মন্দির।