স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : ঝড় নেই। তবে বৃষ্টি আছে। আগামী ৪৮ ঘন্টায় ফের হতে পারে ভারী বৃষ্টি। জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। তবে দক্ষিণবঙ্গে নয় বৃষ্টি ভাসাতে পারে এবার উত্তরবঙ্গকে।

আমফান আসার দিন থেকেই বৃষ্টি শুরু হয়েছে উত্তরবঙ্গে। তার আগেও যখন দক্ষিণবঙ্গে প্যাচপ্যাচে গরম চলছে, তখনও পাহাড়ে গড়ে ৩৮ থেকে ৪০ মিলিমিটার বৃষ্টি হচ্ছিল। আমফান পরবর্তী রাজ্যে পাহাড়ি পাঁচ জেলায় ফের মিলছে বৃষ্টির পূর্বাভাস তাও ভারী বৃষ্টির। উত্তরের কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, কালিম্পঙ ও আলিপুরদুয়ারে ভারী বৃষ্টি হতে পারে আগামী ৪৮ ঘণ্টায়। জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। আলিপুরদুয়ার , কোচবিহার, জলপাইগুড়িতে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হতে পারে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস।

শনিবার সকালে কোচবিহারে ১৭.২ ও জলপাইগুড়িতে ১.২ ও দার্জিলিংয়ে ০.৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত কোচবিহারের ৫২.৫ মিলিমিটার, জলপাইগুড়িতে ৩৭.২ মিলিমিটার, দার্জিলিংয়ে ৮.৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছিল। উত্তরবঙ্গের সমস্ত জেলগুলির সর্বনিম্ন গড় তাপমাত্রা ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এদিকে বাড়তে শুরু করেছে দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রা। গড় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাড়ছে আমফানে বিপর্যস্ত কলকাতার তাপমাত্রাও। শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা, ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি।

শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯২ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৬৪ শতাংশ। বৃষ্টি হয়নি। আজ শনিবার বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলেই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। তাপমাত্রা থাকবে সর্বোচ্চ ৩৪ থেকে সর্বনিম্ন ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ শুক্রবারের তুলনায় সকালের পারদ যেমন বেড়েছে, বৃদ্ধি পাবে বেলার তাপমাত্রাও।

দমদমের সকালের তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বৃষ্টি হয়নি। সল্টলেকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩১ ডিগ্রি সেসিয়াস, বৃষ্টি হয়নি। আর্দ্রতার পরিমাণ দুই অঞ্চলেই আর্দ্রতা যথাক্রমে ৯২ ও ৭৭ শতাংশ।