স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : সরস্বতী পুজোয় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এমন হালকা পূর্বাভাস মিলছে হাওয়া অফিসের সাত দিনের পূর্বাভাসের রিপোর্ট থেকে। সেখানে ষষ্ঠ দিন অর্থাৎ ২৯ জানুয়ারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। তবে আবহাওয়াবিদরা এখন থেকেই তা নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলছেন না। বেসরকারি আবহাওয়া অফিসের সূত্রে খবর অবশ্য ‘কনফার্ম’।

গোটা রাজ্যেই বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা। দাবি বৃষ্টির দাপট বেশি থাকতে পারে দক্ষিণবঙ্গে। প্রসঙ্গত মাঘ মাসের এই সময়ে একটা বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকেই। তাঁর উপর এই বছর শীতে বৃষ্টি নাগাড়ে ধাওয়া করেছে রাজ্যের আবহাওয়াকে। রাতারাতি বারবার পরিবর্তন হয়েছে আবহাওয়ায়। কড়া শীত তার উপর বৃষ্টি এই শীতে চার বার দেখেছে দক্ষিণবঙ্গ। তাই এই চিত্র নতুন কিছু না হলেও বারবার অকাল বৃষ্টি কোথাও বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তার উপর সরস্বতী পুজোয় বৃষ্টির খবর বাঙালির মুখ আরও ব্যজার করতে পারে।

বর্তমান পরিস্থিতি বিচার মনে করে হচ্ছে যে ২৮ জানুয়ারি থেকে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত দফায় দফায় বৃষ্টি হতে পারে রাজ্যে। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে তার প্রভাব বেশি থাকবে। সরস্বতী পুজোর দিন বৃষ্টি সব থেকে বেশি হতে পারে। উত্তর ভারত থেকে এগিয়ে আসা পশ্চিমী ঝঞ্ঝা আর সেই সঙ্গে আরও একাধিক অনুঘটকের জন্য বৃষ্টি নামবে রাজ্যে। বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থার মতে, আগামী সপ্তাহের শুরুতে বঙ্গোপসাগরের ওপরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্ত আর মধ্য ভারতের ওপরে একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হবে। পাশাপাশি শক্তিশালী পশ্চিমী ঝঞ্ঝাও উত্তর ভারত থেকে এগিয়ে আসবে পূর্ব ভারতের দিকে। এই তিনটে কারণে মূলত দক্ষিণবঙ্গ আর উত্তরবঙ্গের পাহাড়ি অঞ্চলের ওপরে জলীয় বাষ্প ঢুকতে শুরু করবে। সে কারণেই নামবে বৃষ্টি। দার্জিলিং জেলায় তুষারপাত আর শিলাবৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে।

এই মরসুমে বড় দিনের পরের দিন অর্থাৎ ২৬ ডিসেম্বর ভালো বৃষ্টি হয়েছিল দক্ষিণবঙ্গে। তার পর নতুন বছরের শুরুতেই টানা তিন দিন কমবেশি বৃষ্টি বাদলা হয়েছে। এর পর বৃষ্টি হয় ৯ জানুয়ারি। শেষে বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারির সকালেও দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় ছিটেফোঁটা বৃষ্টি হয়েছিল।

বৃহস্পতিবারের বৃষ্টির পর আকাশ পরিষ্কার হতেই অবশ্য হুহু করে ঢুকে পড়েছে উত্তুরে হাওয়া। শুক্রবার সকাল থেকেই জোরদার হাওয়া চলছে। হাওয়ার গতিবেগ মাঝেমধ্যে ঘণ্টায় ২৫ কিলোমিটার ছুঁয়ে ফেলছে। সবমিলিয়ে এই ক্ষেপে প্রজাতন্ত্র দিবস পর্যন্ত ঠাণ্ডা থাকবে। তার পরেই আবহাওয়ার মুড বদল হতে পারে। ওই দিনেই আবার দিনই শুরু হচ্ছে আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা। প্রথম দিনেই বৃষ্টির কালো মেঘ বই উৎসবেও।