স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : দক্ষিণবঙ্গে রবিবার বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। দু-এক পশলা ভারি বৃষ্টি হতে পারে পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদে। রবিবার ভারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মুর্শিদাবাদ, বীরভূম জেলায়। কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাতে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন সক্রিয় রয়েছে মৌসুমী বায়ু। নিম্নচাপ অক্ষরেখাও পাঞ্জাব থেকে পূর্ব বিহার পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। শক্তিশালী দখিনা বাতাসে প্রচুর জলীয় বাষ্প নিয়ে আসছে বঙ্গোপসাগর থেকে। ফলে দক্ষিণে বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

রবিবার সকাল পর্যন্ত বাঁকুড়ায় বৃষ্টি হয় ১৫.৯ মিলিমিটার , ব্যরাকপুরে ৩৪.২ মিলিমিটার, বহরমপুরে ২৭.০ মিলিমিটার , ক্যানিংয়ে ৩৭.২ মিলিমিটার, ডায়মন্ড হারবারে ২৬.০ মিলিমিটার , মেদিনীপুরে ৩১.২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। তুমুল বৃষ্টিতে হয়েছে কলকাতাতেও। নেমেছে সকালের পারদ। কমেছে সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও। রবিবার সকালে কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি কম। শনিবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৩৩.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এই ডিগ্রি বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়েছে ৫৮.৮ মিলিমিটার, রাত সাড়ে আটটা থেকে সকাল ছ’টা পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৫৬.১ মিলিমিটার। আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯৭ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৬৮ শতাংশ। দমদমে ৪৩ মিলিমিটার, সল্টলেকে ৪২.২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার কলকাতার তাপমাত্রা ছিল সর্বনিম্ন ২৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি ছিল। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতার পরিমান ছিল সর্বোচ্চ ৯০ শতাংশ, সর্বনিম্ন ৫৪ শতাংশ। বৃষ্টি হয়েছিল ০.৬ মিলিমিটার। দমদমে ছিটেফোঁটা বৃষ্টি হয়েছিল, সল্টলেকে বৃষ্টি হয়নি। বুধবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। বৃহস্পতিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বোচ্চ ৯০ ও সর্বনিম্ন ৫৬ শতাংশ। বৃষ্টির পরিমান ছিল ০.১ মিলিমিটার। ওইদিন দমদমে ৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। সল্টলেকে আবার বৃষ্টি হয়নি।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব