নয়াদিল্লি : বুধবার তামিলনাডু কর্ণাটক ও কেরালাতে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এমনটাই জানাচ্ছে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। এমনিতেই বর্ষার মরসুম শেষের শুরু হয়েছে। উত্তর পশ্চিম ভারতে সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে সোমবার থেকেই। তবে এই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হতে এখন সময় লাগবে। এসবের মাঝেই দক্ষিণ ভারত থেকে শুরু করে উত্তর-পূর্ব ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বৃষ্টির পূর্বাভাস ছিল মৌসম ভবন।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, কর্ণাটক ও কেরালার পাশাপাশি ভারী বৃষ্টি হতে পারে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে। আজ বুধবার ও আগামী ২৪ ঘণ্টায় আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে সমুদ্র উত্তাল থাকবে। সমুদ্র উপকূলে ৪৫ থেকে ৫৫ কিলোমিটার ঝড়ো হাওয়াও বইবে বলে জানাচ্ছেন আবাহাওয়াবিজ্ঞানীরা। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে আজ ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। বুধবার ওডিশা উপকূল ও আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার ভারী বৃষ্টি হবে আসাম ও মেঘালয়ে। শুক্রবার ভারী বৃষ্টির হতে পারে উত্তর-পূর্ব ভারতের নাগাল্যান্ড মণিপুর মিজোরাম ত্রিপুরাতে।

এদিকে, গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা জারি থাকছে। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বিগত কয়েকদিন ধরে হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হচ্ছিল যে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে। ঠিক তেমনটাই হচ্ছে। দক্ষিণের জেলাগুলিতে চলছে বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি, যা আজও জারি থাকবে বলে মত আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের।

কেন এই বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে? আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, পূর্ব বিহার ও উত্তরবঙ্গ ঘেঁষে ঘূর্ণাবর্তটি এখনও রয়েছে। পাশাপাশি গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ও ওডিশা উপকূলে নিম্নচাপ অক্ষরেখা পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে ও রাজস্থানে অবস্থান করছে আরও দুটি ঘূর্ণাবর্ত। বলা যায় একেবারে চতুর্মুখী ফলা। এর প্রভাব বেশ কিছুটা পড়ছে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে, ফলে কোথাও না কোথাও প্রত্যেকদিনই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে। সময়ান্তর বৃষ্টি হচ্ছেও। সেই সম্ভাবনা আজ বুধবারেও থাকছে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

গত সপ্তাহ পর্যন্ত ভারী বৃষ্টি নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছিল উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিকে। তবে আপাতত সেই সমস্যা থেকে মুক্তি উত্তরবঙ্গের। এই মুহূর্তে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে আর ভারী , অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এমনিতেই উত্তরবঙ্গে এবারে প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। উত্তরের বৃষ্টিতেই স্বাভাবিক রয়েছে রাজ্যের সামগ্রিক বৃষ্টির চিত্র। সেই চিত্রের বদল হচ্ছে না তবে বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকায় বৃষ্টির অস্বস্তি কমছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।