নয়াদিল্লি: ট্রেনের অংসরক্ষিত কামরায় দাঁড়িয়ে যাতায়াত করার অভিজ্ঞতা রয়েছে অনেকেরই। অনেক দূরের রাস্তাতেও সিট পাওয়া যায় না সবসময়। প্রবল ভিড়েই যাতায়াত করতে হয়। এবার সেই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি দিতে চলেছে রেল। আর তার জন্য উন্নততর প্রযুক্তি নিয়ে আসছে ভারতীয় রেলওয়ে। রেল ব্যবস্থাকে করা হচ্ছে আরও বেশি আধুনিক। এবার থেকে প্রথমে এলে প্রথমে হবে সিট বুকিং।

জানা গিয়েছে, নতুন সিস্টেমে যাত্রীরা যারা জেনারেল ক্লাসের জন্য টিকিট কাটবেন তাঁদের ফিঙ্গার প্রিন্ট বা আঙুলের ছাপ স্ক্যান করিয়ে নেওয়া হবে স্টেশনে থাকা একটি বায়োমেট্রিক মেশিনে। সেই স্ক্যানিংয়ের পর মেশিন থেকে একটি টোকেন পাওয়া যাবে। তাতে একটি সিরিয়াল নম্বর জেনারেট হবে। ঠিক যতগুলি সিট আছে, ততগুলিই টোকেন জেনারেট হবে ওই মেশিন থেকে।

আরও পড়ুন: আপনার প্যান কার্ডটি বাতিল কিনা দেখে নিন ৩টি উপায়ে

এরপর যাত্রীদের স্টেশনে সিরিয়াল নম্বর অনুযায়ী লাইন দিয়ে দাঁড়াতে হবে। ট্রেনে ওঠার মুখে আরপিএফের স্টাফ থাকবেন। তিনিই টোকেন গুলি ভেরিফাই করে যাত্রীদের ট্রেনে উঠতে দেবেন। এইভাবে সব যাত্রীর অসুবিধাই এড়ানো সম্ভব হয়ে।

বর্তমানে পরীক্ষামূলকভাবে এরকম বায়োমেট্রিক টোকেন মেশিন বসানো হয়েছে মুম্বই সেন্ট্রাল ও বান্দ্রা টার্মিনাসে।

প্রাথমিক ভাবে যে সব ট্রেনে এই সিস্টেম চালু করা হবে সেগুলি হল, Amravati Express (Mumbai Central station), Jaipur Superfast Express (Mumbai Central station), Karnavati Express (Mumbai Central station), Gujarat Mail (Mumbai Central station), Golden Temple Mail (Mumbai Central station), Paschim Express (Bandra Terminus), Amaravati Express (Bandra Terminus), Avadh Express (Bandra Terminus), Maharashtra Sampark Kranti Express (Bandra Terminus)

আরও পড়ুন: অবশেষে বাড়ছে বেতন, ১১০০ কোটি টাকা ব্যায় ভার বাড়ছে মমতা সরকারের

মূলত ট্রেনের ভিড় সামলাতে ও নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেই এই ব্যবস্থা চালু করছে রেল। এর আগে হায়দরাবাদ ও বেঙ্গালুরু এয়ারপোর্টে ফেসিয়াল রেকগনিশন টেকনোলজি দিয়ে যাত্রীদের প্রবেশের ব্যবস্থা পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছিল।