নয়াদিল্লি: গত লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুটি লোকসভা কেন্দ্র থেকে লড়াই করেছিলেন৷ দুটি কেন্দ্র থেকেই ভোটে জয়ী হন তিনি৷ এবার সেই পথে হাঁটছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ নিজের গড় আমেঠি ছাড়া আরও একটি কেন্দ্র থেকে লড়তে দেখা যাবে সোনিয়া পুত্রকে৷

আরও পড়ুন- দঃ মালদহে জমজমাট রবিবাসরীয় প্রচারে মোয়াজ্জেম ও শ্রীরূপা

প্রথম লোকসভার ময়দানে রাহুল গান্ধীকে দুটি কেন্দ্র থেকে লড়তে দেখা যাবে৷ দ্বিতীয় যে কেন্দ্রটি কংগ্রেস সভাপতির জন্য বাছা হয়েছে তা হল কেরলের ওয়ানাড লোকসভা কেন্দ্রটি৷ দলের প্রবীণ নেতা এ কে অ্যান্টনি এই খবর ঘোষণা করা মাত্র উল্লাসে ফেটে পড়েন কেরল কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা৷ রাহুলকে এই রাজ্য থেকে ভোটে দাঁড় করানো নিয়ে প্রথম থেকেই সক্রিয় ছিল কেরল কংগ্রেস লবি৷

আরও পড়ুন- টালা ব্রিজে বিস্ফোরক উদ্ধারের ঘটনায় ভিন রাজ্য থেকে গ্রেফতার এক

অন্যদিকে কর্ণাটক প্রদেশ কংগ্রেসও চেয়েছিল রাহুল তাদের রাজ্য থেকে ভোটে দাঁড়াক৷ কারণ কর্ণাটকের সঙ্গেও গান্ধী পরিবারের নিবিড় রাজনৈতিক সম্পর্ক রয়েছে৷ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ১৯৭৮ সালে কর্ণাটকের চিকমাগালুর কেন্দ্র থেকে জিতে ফের সাংসদ হন৷ রাহুলের মা সোনিয়া ১৯৯৯ সালে কর্ণাটকের বেল্লারি আসন থেকে জয় লাভ করেন৷ তাই রাহুলকে কর্ণাটক থেকে প্রার্থী করতে উঠেপড়ে লেগেছিল রাজ্য কংগ্রেস৷ এমনকী তাঁর জন্য একটি আসন পাকা করে ফেলেছিলেন কর্ণাটকের কংগ্রেসী নেতারা৷ তবে শেষ হাসিটা হাসল কেরল প্রদেশ কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন- জইশ-ই-মহম্মদ আইএসআইয়ের বিষাক্ত হাত, ভারতের পাশে আফগানিস্তান

গত সপ্তাহে কংগ্রেসের ওর্য়াকিং কমিটি রাহুলের দুটি কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে সবুজ সঙ্কেত দেয়৷ তাঁর জন্য এমন একটি কেন্দ্র চূড়ান্ত করতে বলা হয় যেখানে রাহুলের উপস্থিতি ওই আসন সংলগ্ন অন্যান্য লোকসভা কেন্দ্রগুলিকেও প্রভাবিত করতে পারে৷ ওয়ানাড কেন্দ্রটি এমন একটি জায়গায় যার একদিকে কর্ণাটক অন্যদিকে তামিলনাড়ু৷ ফলে ভৌগলিক দিক থেকে আসনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ এই একটি আসনকে পাখির চোখ করে দক্ষিণের তিনটি রাজ্যে কংগ্রেসের ভালো ফল করার লক্ষ্যে ঝাঁপাবে দল৷ ওয়ানাড কেন্দ্রে ভোট ২৩ এপ্রিল৷ অপরদিকে আমেঠিতে ভোট হবে ৬ মে৷