দেবময় ঘোষ, কলকাতা: রায়গঞ্জের করণদিঘিতে সভামঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাক্যবাণে বিদ্ধ করবেন রাহুল গান্ধী – ভেবেছিলেন বাংলার কংগ্রেস জনতা৷ কিন্তু তেমন হল কই৷ কংগ্রেসের সঙ্গে নাকি বাংলায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের আঁতাত রয়েছে – মমতার এই বিস্ফোরক অভিযোগ রাহুল গান্ধীর কানে এসেছে কিনা তা জানা নেই তবে উত্তর বঙ্গের কংগ্রেস জনতাকে মমতার বিরুদ্ধে রাহুলের জবাবি ভাষণ চেয়েছিলেন, তা বলাই বাহুল্য৷ বরং আক্রমণের পরিবর্তে মমতাকে জবাবদিহি করাকেই শ্রেয় মনে করেছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ বলেছেন, ‘‘মমতাজি বলেন কংগ্রেস বিজেপির সঙ্গে লড়াই করছে না? তাহলে রাফায়েল ইস্যু কারা তুলল৷ চৌকিদারকে চোর কে বানালো? ৭০ বছরে কংগ্রেস বিজেপির সঙ্গে হাত মেলায়নি৷ কিন্তু মমতাজি মিলিয়েছেন৷’’

প্রশ্ন উঠেছে, রাহুল মমতাকে ‘অল আউট’ আক্রমণ করলেন না কেন? সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলে সরকার গড়তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাহায্যের প্রত্যাশায় রাহুল কী তাঁকে বাংলায় ওয়াকওভার দিয়ে গেলেন? মধ্যপ্রদেশ এবং রাজস্থানে কৃষিঋণ মকুপ করার কতা ঘোষণা করে মমতাকে প্রশ্ন করেন ‘মমতাজি কী রাজ্যে কৃষিঋণ মকুপ করেছেন?’রাহুলের বক্তব্য মোদী সরকার শিক্ষায় বেসরকারিকরণ করে ছাত্রদের বিপদ ডেকেছেন৷

কংগ্রেস সরকারে এলে রায়গঞ্জে সরকারি কলেজ তৈরি করবেন৷ আধুনিক কলেজে পড়া যাবে সরকারি খরচায়৷ ব্যাস এই পর্যন্তই৷ বক্তব্যের বেশিরভাগ জায়গা জুড়ে রাহুল জনতাকে রাফাল কেলেঙ্কারী বোঝাতে চেয়েছেন রাহুল৷

রায়গঞ্জের মানুষকে প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি কথা উল্লেখ করে রাহুল প্রিয় দাশমুন্সিকে স্মরণ করেছেন৷ কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট খেকে রাফাল তাঁর বক্তব্য এর বাইরে খুব একটা বেরয়নি৷ কংগ্রেস জনতা অবাক হয়েছেন, যখন বিজেপি সবাপতি অমিত শাহ ২৪ ঘন্টার মধ্যেই রায়গঞ্জে নেমে পিসি-ভাইপোর বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে তৈরি হচ্ছেন, তখন রাহুল গান্ধী কংগ্রেসের ‘ফেভারিট’ আসলে এমন নরম হয়ে রইলেন কেন৷ বামফ্রন্ট প্রার্থী সিপিএমের পলিটব্যুরোর নেতা মহম্মদ সেলিমের বিরুদ্ধে তেমন কিছু বললেন কই রাহুল?