নয়াদিল্লি: সোমবার সকালেই প্রকাশ পেয়েছে তথ্য৷ আর সেই তথ্য বেশ শোরগোল ফেলেছে৷ কংগ্রেসের ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে শীর্ষ কংগ্রেস নেতাদের নিজের বিকল্প খোঁজার ভার দিতে চাইছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ তিনি নাকি বলেছেন আমার বিকল্প খুঁজুন৷

কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল ও কেসি ভেনুগোপালের সাথে সোমবার বৈঠক করেন রাহুল৷ সেখানে দলের নতুন সভাপতি খোঁজার পরামর্শ দেন তিনি৷ কারণ এই বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন, যে সভাপতির পদ থেকে সরছেন তিনি৷ তাঁর এই সিদ্ধান্তের বদল হবে না বলেই কংগ্রেস সূত্র জানাচ্ছে৷

এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে সেই সূত্র মারফত খবর লোকসভা নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলের পর দলের বিপর্যয়ের দায়িত্ব নিজের ঘাড়েই নিচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ ফলে পদ ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তিনি৷ তবে কংগ্রেসের অন্যান্য নেতারা তাঁর এই সিদ্ধান্তে সহমত নন বলেই খবর৷ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এতটাই ভেঙে পড়েছেন, যে সদ্য নির্বাচিত কংগ্রেস সাংসদদের সঙ্গেও তিনি দেখা করতে চাইছেন না৷ তাঁর যাবতীয় বৈঠকও বাতিল বলেই ঘোষণা করেছেন রাহুল৷

আরও পড়ুন : শতাংশের হিসাবে মাত্র ৬ বামফ্রন্ট প্রার্থী ‘ডবল ডিজিটে’

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর প্রপিতামহ জহরলাল নেহেরুর মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানান রাহুল৷ সোমবার সকালে সূত্র মারফত জানা যায়, পদত্যাগ এখনই করছেন না রাহুল, কিন্তু পদ ছাড়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন অনেকবার৷ তিনি চাইছেন কংগ্রেসের সর্বোচ্চ আসনে নতুন কোনও ব্যক্তি আসুক৷

সূত্রের খবর, রাহুলের এই ইচ্ছাতে সহমত তাঁর মা সোনিয়া গান্ধী ও বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও৷ প্রাথমিকভাবে তাঁরা রাহুলের ইচ্ছাকে গুরুত্ব না দিলেও, পরে বিষয়টি বোঝেন ও রাহুলের সঙ্গে একমত হন৷

আরও পড়ুন : হারের দায় নিয়ে আরও এক ইস্তফা কংগ্রেসে

যদিও শনিবারই পদত্যাগ পত্র দলের নেতাদের হাতে তুলে দিয়েছেন রাহুল গান্ধী, তবে তৎক্ষণাৎ দলের নেতারা সর্বসম্মতিক্রমে তা প্রত্যাখ্যান করেন বলে খবর৷ এদিকে, রাহুল গান্ধী জানিয়েছেন পদ থেকে সরে দাঁড়ালেও কংগ্রেসের জন্য আজীবন কাজ করে যাবেন তিনি৷

তবে শনিবারের বৈঠকে লোকসভা ভোটে কংগ্রেসের ভরাডুবির দায় নিজের কাঁধে নিয়েও দলের প্রবীণ নেতাদের দোষ দেন রাহুল গান্ধী৷ দলের থেকেও রাজনীতিতে ছেলেদের কেরিয়ার দাঁড় করানোর চিন্তাতেই ভোটে কংগ্রেসের এই শোচনীয় ফল বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

আরও পড়ুন : আমরা মুসলিমরা বিজেপির চোখে মানুষ নই: আসাদুদ্দিন ওয়াসি

শনিবার ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডাকে কংগ্রেস৷ সূত্রের খবর, সেখানে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট এবং মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের মতো প্রবীণ নেতাদের নিয়ে ক্ষোভ ব্যক্ত করেন রাহুল৷

উল্লেখ্য লোকসভা নির্বাচনে ৩০০টিরও বেশি আসন পেয়ে ফের ক্ষমতায় বসতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী। দেশজুড়ে শোচনীয় অবস্থা কংগ্রেসের। এরপরেই জানা যায়, কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চান রাহুল গান্ধী। সোনিয়া গান্ধীর উপস্থিতিতেই দলের কাছে রাহুল এই ইচ্ছাপ্রকাশ করেছে বলে জানা গিয়েছে। গোটা দেশজুড়ে দলের এহেন পরাজয়ের সমস্ত দায় নিজের ঘাড়ে নিয়ে দলের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করতে চান রাহুল।