নয়াদিল্লি: নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরতে রাজি নন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ যে কোনও পরিস্থিতিই হোক না কেন, পদত্যাগ করবেন তিনি৷ এমনই সাফ জানিয়েছেন বর্তমান কংগ্রেস সভাপতি৷ ফলে বেশ সমস্যায় পড়েছে কংগ্রেস৷ মঙ্গলবার ফের রাহুল গান্ধীর সিদ্ধান্ত খতিয়ে দেখতে বৈঠকে বসছে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি৷

লোকসভা ভোটে দলের ভরাডুবির দায়ভার নিজের কাঁধে নিয়ে সরে যেতে চাইছেন রাহুল গান্ধী৷ বেশ কয়েকদিন আগে থেকেই এই জল্পনা চলছিল যে পদত্যাগ করতে পারেন তিনি৷ তবে সেই খবর গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছিলেন কংগ্রেস শীর্ষ নেতারা৷ যদিও তাতে ড্যামেজ কন্ট্রোল করা যায়নি৷ সত্যি এবার পদত্যাগ করতে চাইছেন রাহুল, প্রকাশ্যেই জানিয়েছেন সেকথা৷

আরও পড়ুন : মোদীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত নন ইমরান

যদি সত্যিই রাহুল গান্ধী পদত্যাগ করেন, তাহলে তাঁর আসনে কে বসবেন? কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির আলোচনার মূল অ্যাজেন্ডা হতে চলেছে উত্তরসূরী বিষয়টি৷ তবে রাহুল গান্ধীকে এই সিদ্ধান্ত থেকে বিরত করার নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা৷ কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির সূত্র বলছে রাহুল গান্ধী পদত্যাগ করলে কংগ্রেসের সাংগঠনিক কাঠামোতেও বড়সড় পরিবর্তন আসবে৷ নতুন নতুন অনেক মুখকে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা থাকছে৷

কংগ্রেস নেতা আহমেদ প্যাটেল ও কেসি ভেনুগোপালের সাথে সোমবার বৈঠক করেন রাহুল৷ সেখানেই দলের নতুন সভাপতি খোঁজার পরামর্শ দেন তিনি৷ কারণ এই বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন, যে সভাপতির পদ থেকে সরছেন তিনি৷ তাঁর এই সিদ্ধান্তের বদল হবে না বলেই কংগ্রেস সূত্র জানাচ্ছে৷

এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে সেই সূত্র মারফত খবর লোকসভা নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলের পর দলের বিপর্যয়ের দায়িত্ব নিজের ঘাড়েই নিচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ ফলে পদ ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তিনি৷

আরও পড়ুন : সরকারি কর্মীদের জন্য সপ্তাহে পাঁচদিন ছুটির ঘোষণা নয়া মুখ্যমন্ত্রীর

তবে কংগ্রেসের অন্যান্য নেতারা তাঁর এই সিদ্ধান্তে সহমত নন বলেই খবর৷ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এতটাই ভেঙে পড়েছেন, যে সদ্য নির্বাচিত কংগ্রেস সাংসদদের সঙ্গেও তিনি দেখা করতে চাইছেন না৷ তাঁর যাবতীয় বৈঠকও বাতিল বলেই ঘোষণা করেছেন রাহুল৷

শনিবারও ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডাকে কংগ্রেস৷ সূত্রের খবর, সেখানে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট এবং মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের মতো প্রবীণ নেতাদের নিয়ে ক্ষোভ ব্যক্ত করেন রাহুল৷

উল্লেখ্য লোকসভা নির্বাচনে ৩০০টিরও বেশি আসন পেয়ে ফের ক্ষমতায় বসতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী। দেশজুড়ে শোচনীয় অবস্থা কংগ্রেসের। এরপরেই জানা যায়, কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিতে চান রাহুল গান্ধী। সোনিয়া গান্ধীর উপস্থিতিতেই দলের কাছে রাহুল এই ইচ্ছাপ্রকাশ করেছেন বলে জানা গিয়েছে।