নয়াদিল্লি: সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলেন রাজীব কুমার। সোমবার আদালতে আবেদন জানিয়েছেন তিনি। পশ্চিমবঙ্গে আইনজীবীদের কর্মবিরতি। তাই তাঁকে দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের ৭ দিনের রক্ষাকবচ বাড়ানোর আবেদন করেছেন কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল

গত সপ্তাহে সুপ্রিম কোর্টে রাজীব কুমারে ‘রক্ষাকবচ’ সরিয়ে নেয় দেশের শীর্ষ আদালত৷ রাজীব কুমারকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করতে পারবে সিবিআই৷ এমনটাই নির্দেশ দিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টের অবসরকালীন বেঞ্চের সদস্য বিচারপতি সঞ্জীব খান্নার৷

গত ১৭ মে বলা হয়েছিল, আগামী সাতদিনের মধ্যে যো কোনও আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করতে পারবেন আইপিএস রাজীব কুমার৷ নির্দেশ দেশের শীর্ষ আদালতের৷

মূলত সারদা সহ বিভিন্ন চিটফান্ড সংস্থা সম্পর্কিত তদন্তে কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল অসহযোগিতা করছেন বলে আদালতে অভিযোগ করে সিবিআই৷ তদন্তের স্বার্থে তাঁকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করার জন্য সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানায় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরা৷

এর আগেই নির্বাচন কমিশনের নির্দেশের বাংলা ছাড়তে হয় প্রাক্তন কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে৷ শেষ দফার আগে গত বুধবারই কমিশনের নজিরবিহীন নির্দেশিকা জারি করে।

যে নির্দেশে সিআইডির অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেল পদ থেকে সরানো হয় আইপিএস রাজীব কুমারকে৷ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় তাঁকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দেয় নির্বাচন কমিশন৷ তাই বৃহস্পতিবার সকালেই তড়িঘড়ি কলকাতা থেকে দিল্লি চলে যান তিনি৷

কমিশনের এই পদক্ষেপ পিছনে বিজেপির মদত রয়েছে বলে অভিযোগ মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ কমিশনের বিশ্বসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি৷ বলেন, ‘‘কমিশন কেন্দ্রীয় শাসক দলের অঙ্গুলি হেলনে চলছে৷’’

এদিন সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়ে রাজীব কুমার বলেন, কলকাতায় আইনজীবীদের কর্মবিরতি চলছে৷ ফলে কোনও কোর্টেই কাজ হচ্ছে না৷ আগাম জামিনের আবেদনও করা যাচ্ছে না৷ ইতিমধ্যেই সুপ্রিম নির্দেশের পর কেটে গিয়েছে তিন দিন৷ ফলে তাঁকে যেন বাড়তি সাত দিন সময় দেওয়া হয় আগাম জামিনের আবেদন করার ক্ষেত্রে৷

জবাবে বিচারপতি ঞ্জীব খান্না বলেন এই রায় প্রধান বিতারপতির ডিভিশন বেঞ্চের তিন সদস্যের নির্ধারিত৷ ফলে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্ররের কাছে যেন আবেদন করেন কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল৷