নিউইয়র্ক: বিশ্বের পয়লা নম্বর মহিলা টেনিস প্লেয়ার অ্যাশলে বার্টির পর ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন (পুরুষ) রাফায়েল নাদাল। করোনা আবহে চলতি মাসের শেষে শুরু হতে চলা ইউএস ওপেন আরও এক তারকাহীন। বিশ্বজুড়ে পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। এমন সময় ফ্লাশিং মেডোয় খেতাব ধরে রাখার লড়াইয়ে অংশগ্রহণের বিষয়টি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে দাঁড়াবে বলে মনে করেন স্প্যানিশ টেনিস মায়েস্ত্রো।

মঙ্গলবার একাধিক টুইটে যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে অংশগ্রহণের বিষয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন রাফা। গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের নিরিখে ফেডেরারকে স্পর্শ করা থেকে মাত্র একধাপ দূরে দাঁড়িয়েও নাদাল বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে পরিস্থিতি ভীষণই উদ্বেগজনক। কোভিডে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। মনে হচ্ছে পরিস্থিতি বিন্দুমাত্র নাগালের মধ্যে আসেনি। তাই এমন একটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার ইচ্ছে না থাকলেও বাধ্য হয়েই নিতে হচ্ছে। অনেক চিন্তা-ভাবনার পর চলতি বছর ইউএস ওপেনে না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি।’

তবে চার মাস অন্যান্য খেলার পাশাপাশি টেনিস ক্যালেন্ডারও ব্যাপকভাবে বিঘ্নিত হওয়ার পর ইউএস ওপেন উদ্যোক্তাদের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ১৯টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক। উল্লেখ্য, গত বছর ফ্লাশিং মেডো ফাইনালে ৪ ঘন্টা ৫০ মিনিটের ম্যারাথন লড়াইয়ে ড্যানিল মেদভেদেভকে ৭-৫, ৬-৩, ৫-৭, ৪-৬, ৬-৪ সেটে হারিয়ে চতুর্থবার যুক্তরাষ্ট্র ওপেনে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছিলেন স্প্যানিয়ার্ড।

এমনিতেই দর্শকহীন গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচ। চোটের কারণে নেই রজার ফেডেরার। তার উপর রাফায়েল নাদাল, অ্যাশলে বার্টির মতো তারকারা একে একে নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ায় আরও ফিকে হচ্ছে ফ্লাশিং মেডোর জৌলুষ। যদিও গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র টেনিস অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, ‘ইউএস ওপেন পরিকল্পনামাফিকই অনুষ্ঠিত হবে।’ শুক্রবার ইউএসটিএ জানিয়েছে, ‘সকল প্লেয়ার এবং টুর্নামেন্টের সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সর্বোচ্চ নিরাপত্তা প্রদান করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। আমরা সে বিষয়ে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী। ইউএসটিএ খুব শীঘ্রই নিরাপত্তা সংক্রান্ত নির্দেশিকা প্রকাশ করবে।’

‘ইউএসটিএ মেডিক্যাল অ্যাডভাইসরি টিম এবং নিরাপত্তা টিমের সঙ্গে নিউ ইয়র্ক শহরে কাজ করছে। টুর্নামেন্ট ভেন্যু এবং প্লেয়ারদের থাকার হোটেলে ইতিমধ্যেই স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নিরাপত্তা বিষয়ে একটি শক্তিশালী রূপরেখা তৈরি করা হয়েছে।’ জানিয়েছে আয়োজক সংস্থা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও