মালোর্কা: বাগদান পর্বটা সেরে রেখেছিলেন প্রায় একবছর আগে। এবার খানিকটা চুপিসারে বিয়েটাও সেরে ফেললেন স্প্যানিশ টেনিস কিংবদন্তি রাফায়েল নাদাল। দীর্ঘদিনের বান্ধবী সিসকা পেরেলোর সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেন ১৯টি গ্র্যান্ডস্ল্যামের মালিক। শনিবার পুয়ের্তো রিকোর লা ফোর্টালেজায় রীতিনীতি মেনে চার হাত এক হল নাদাল ও পেরেলোর।

সেই অর্থে চাঁদের হাট না থাকলেও পুয়ের্তো রিকোর অভিজাত ক্যাসেলে নাদালের বিবাহ অনুষ্ঠানে এদিন আমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ৩৫০ জন অতিথি। আমন্ত্রিতের তালিকায় ছিলেন স্পেনের রাজা জুয়ান কার্লোস (১৯৭৫-২০১৪)। ঘরোয়া জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়েই বছর একত্রিশের পেরেলোর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন বছর তেত্রিশের নাদাল। উল্লেখ্য, নাদালের বোন মারিবেলের ছোটবেলার বন্ধু ফ্রান্সিসকো পেরেলো। ২০০৫ বোন মারিবেলের মারফৎ নাদালের সঙ্গে যোগাযোগ হয় পেরেলোর। এরপরেই শুরু হয় মন দেওয়া নেওয়ার পর্ব। দীর্ঘ ১৪ বছর বাদে পূর্ণতা পেল তাঁদের ভালোবাসা।

আরও পড়ুন: প্রথমবার স্কোরশিটে একসঙ্গে নাম তুললেন এমএসজি, লিগ শীর্ষে বার্সেলোনা

কবজিতে চোটের কারণে লেভার কাপের শেষ দুই ম্যাচে নাম প্রত্যাহার করে নেন স্প্যানিশ তারকা। পরবর্তীতে বাধ্য হয়ে সাংহাই মাস্টার্স থেকেও নাম প্রত্যাহার করে নিতে হয় চলতি মরশুমে ফরাসি ও যুক্তরাষ্ট্র ওপেন জয়ীকে। এই নিয়ে টানা দ্বিতীয়বার সাংহাই মাস্টার্স থেকে চোটের কারণে নাম তুলে নিতে বাধ্য হন ১৯টি গ্র্যান্ডস্ল্যামের মালিক। একটি বিবৃতি মাধ্যমে নাদাল জানান, ‘লেভার কাপ চলাকালীনই বাঁ-হাতের কবজিতে কিছু সমস্যা তৈরি হয়েছিল। সেই চোট সারিয়ে সাংহাই মাস্টার্সের প্রস্তুতির জন্য পর্যাপ্ত অনুশীলন করে উঠতে পারিনি। আশা রাখছি ২০২০ সাংহাইতে ফিরতে পারব।’

আরও পড়ুন: মাঠেই ক্রিকেটারকে প্রেমের প্রস্তাব বয়ফ্রেন্ডের, ভাইরাল ভিডিও

টুর্নামেন্ট ডিরেক্টর মাইকেল লুয়েভানো এক বিবৃতিতে জানান, ‘চিনে টেনিসের প্রসার ও সাংহাই মাস্টার্সের একজন প্রবল অনুরাগী হিসেবে নিশ্চিতভাবে নাদালের অভাব অনুভব করব আমরা।’ একইসঙ্গে সাংহাই মাস্টার্সের গোটা টিমের পক্ষ থেকে নাদাল ও তাঁর স্ত্রী মারিয়া ফ্রান্সিসকা পেরেলোকে বিয়ের আগাম শুভেচ্ছা জানান লুয়েভানো।