প্যারিস: প্রত্যাশা মতোই রোলাঁ গারোর সিংহাসন নিজের দখলে রাখলেন লাল সুড়কির অবিসংবাদিত সম্রাট রাফায়েল নাদাল৷ ক্লে কোর্টে নতুন প্রজন্মের তারকা হিসাবে চিহ্নিত ডমিনিক থিয়েমকে ফাইনালে স্ট্রেট সেটে উড়িয়ে দিলেন রাফা৷ আগাগোড়া আধিপত্য বজায় রেখে ২ ঘণ্টা ৪২ মিনিটে ম্যাচের ফল ৬-৪, ৬-৩, ৬-২ সেটে নিজের অনুকূলে টেনে নেন স্প্যানিশ কিংবদন্তি৷ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ঘরে তুললেন একাদশ ফরাসি ওপেন খেতাব৷

ফাইনাল পর্যন্ত যাত্রাপথে একটি মাত্র সেট খুইয়েছিলেন নাদাল৷ ক্লে কোর্টে টানা ৩৮টি সেট জয়ের ধারায় ছেদ পড়ায় রাফাকে আশঙ্কার চোরা স্রোত বইতে শুরু করেছিল রোলাঁ গারোয়৷ তবে সেমিফাইনালে জুয়ান মার্টিন দেল পোত্রোকে হেলায় হারিয়ে নাদাল বুঝিয়ে দিয়েছিলেন যে, লাল সুড়কিতে এখনও অপ্রতিরোধ্য তিনি৷ ফাইনালে তা আরও একবার প্রমাণ করে দিলেন তিনি৷

এমনিতে ফেডেরার, মারেরা না থাকায় বরাবরের মতো টুর্নামেন্টে ফভারিট ছিলেন নাদালই৷ তবু বিশ্বের আট নম্বর অস্ট্রিয়ান তরুন ডমিনিক থিয়েম ফাইনালে ওঠায় নিশ্চিন্ত হতে পারছিলেন না রাফার সমর্থকরা৷ সাম্প্রতিক কালে ক্লে কোর্টে নাদালকে সব থেকে বেশি যিনি বেগ দিয়েছেন, তিনি অন্য কেউ নন, এই থিয়েমই৷ খেতাবি লড়াইয়ে স্প্যানিশ তারকার আগ্রাসনের সামনে আত্মসমর্পণ করলেও ম্যাচের শেষে নাদাল উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন তাঁর প্রতিপক্ষের৷ পরিস্কার জানিয়ে দেন যে, আগামী দু’বছরের মধ্যেই রোলাঁ গারোয় চ্যাম্পিয়ন হতে পারেন থিয়েম৷

ফাইনালের শুরুটা মন্দ করেননি থিয়েম৷ শুরুতেই ব্রেক আদায় করে নাদাল এগিয়ে গেলেও পাল্টা সার্ভিস ভেঙে লড়াইয়ে সমতা ফেরান ২৪ বছর বয়সি অস্ট্রিয়ান তরুন৷ যদিও শেষ রক্ষা হয়নি৷ আঙুলের চোট নিয়েও নাদাল যে রকম আগুন ঝরান কোর্টে, তাতে রানার্স হয়েই সন্তুষ্ট হওয়া ছাড়া উপায় ছিল না তাঁর৷

গোটা ম্যাচে ৭টি এস সার্ভিস করেছেন থিয়েম৷ নাদাল সেখানে সরাসরি সার্ভিস থেকে একটিও পয়েন্ট তুলতে পারেননি৷ তবে ৫টি ডাবল ফল্ট ও ৪২টি আনফোর্সড এররের পাশাপাশি নেট পয়েন্টে রাফার থেকে বেশ খানিকটা পিছিয়ে থাকার মাশুল দিতে হয় থিয়েমকে৷

এই নিয়ে এগারো বার ফরাসি ওপেনের ফাইনালে উঠেছিলেন নাদাল৷ প্রতি বারই চ্যাম্পিয়নের ট্রফি হাতে তুলেছেন৷ সব মিলিয়ে নাদালের এটি ১৭ নম্বর গ্র্যান্ড স্ল্যাম খেতাব৷ ২৪ বার মেজর ফাইনাল খেলে এই কৃতিত্ব অর্জন করেন তিনি৷ সর্বাধিক মেজর জয়ের নিরিখে ২০টি ট্রফি নিয়ে প্রথম স্থানে থাকা ফেডেরারের থেকে ব্যবধান আরও কিছুটা কমিয়ে ফেলেন রাফা৷