কলকাতা: শহরে এখানে ওখানে গজিয়ে উঠেছে নানান অবিধ স্পা, ম্যাসাজ সেন্টার। অধিকাংশ ঠিক থাকলেও বেশ কয়েকটি হয়ে উঠেছে নানান অবিধ কাজের জায়গা। আর শহরের বিলাসবহুল এলাকা বা জনবহুল এলাকাতেই রমরমিয়ে চলেছে এই মধুচক্রের কারবার।

শুধুমাত্র এবছরেই একাধিক জায়গায় হানা দিয়েছে কলকাতা পুলিশ। কখনও বালিগঞ্জ আবার কখনও রাসবিহারী বারেবারে পর্দাফাঁস হয়েছে বারবার। তবে এবার যৌথ অভিযান চালালো কলকাতা পুলিশ।

আর যৌথ অভিযানে ফসল একেবারে হাতেহাতে। রবিবারে তল্লাশি অভিজান চলায় পুলিশের গুণ্ডা দমন শাখা, গোয়েন্দা বিভাগ ও স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। অভিযানে গ্রেফতার করা হয় মোট ৬৫ জনকে।

আরও পড়ুন – ধর্ষণ ও POSCO মামলায় গুরুত্বপূর্ন পদক্ষেপ কেন্দ্রের, চিঠি যাবে সব রাজ্যে

পুলিশের মূল টার্গেট ছিল রাসবিহারী অ্যাভিনিউ, নিউ মার্কেতট চত্বর, প্রিন্স আনোয়ার সাহ ও ভবানীপুর এলাকা। সেসব জায়গাতেই হানা দেয় এই তিন যৌথ বাহিনী। গ্রেফতার করা হয় দেবব্রত বইদ্য নামে এক ব্যক্তিকে। ওই ব্যক্তিকে সোমবার আদালতে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে।

এর আগে উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দলে ড্রিমল্যান্ড হোটেলে খোঁজ মিলেছিল মধুচক্রের আসরের। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে যৌথ তল্লাশি চালায় জগদ্দল থানার পুলিশ ও ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিটেকটিভ ডিপার্টমেন্ট এর গোয়েন্দারা। ড্রিমল্যান্ড নামের হোটেলে হানা দিয়ে মধুচক্রের আসর থেকে ৯ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।