ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: দোকানের আড়ালে মধুচক্র চালানোর ঘটনায় চাঞ্চল্য দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে। শহরের সাহেবকাছাড়ি এলাকায় রাস্তার ধারে টেলারের দোকানের আড়ালে রকটি ঘরের ভেতর চলা মধুচক্রের আসর থেকে মহিলা সমেত কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে বালুরঘাট থানার পুলিশ।

অভিযোগ দোকানের খদ্দের সেজে প্রতিদিন বাইরে থেকে আসা মহিলাদের আনাগোনা দেখে সন্দেহ হয় স্থানীয়দের। শুক্রবার বিকেলেও একই ভাবে বেশ কয়েকজন মহিলা ও পুরুষ সেখানে ঢোকেন বলে অভিযোগ। এর পরেই প্রতিবেশীরা ট্রেলারের পেছনের বাড়ির একটি ঘরে ঢুকে হাতেনাতে সকলকে ধরে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তিন মহিলা সমেত দুইজন পুরুষকে গ্রেফতার করেছে। অভিযোগ এর আগেও বাড়িটির ভেতর মধুচক্র চালানো ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

গত সেপ্টেম্বরেই শহরে মধুচক্রের পর্দাফাঁস হয়৷ স্পা-সেন্টারের আড়ালে মধুচক্রের কারবারের অভিযোগ ওঠে৷ লালবাজার গোয়েন্দা পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে ৩০ জনকে গ্রেফতার করে৷

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায় লালবাজারের গোয়েন্দা পুলিশ৷ কালীঘাটের সদানন্দ রোড,নিউ আলিপুরের সাহাপুর কলোনি ও শেক্সপিয়র সরণী থানা এলাকার কয়েকটি পাবে চলে অভিযান৷ তাতে স্পায়ের মালিক, ম্যানেজার সহ ৩০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ,স্পা-সেন্টারের আড়ালে মধুচক্রের কারবারের৷ এবং বেআইনিভাবে গভীর রাত পর্যন্ত ওই পাবে চলত অসামাজিক কাজকর্ম৷

এর আগে বসিরহাট রেজিস্ট্রি অফিস সংলগ্ন এলাকার একটি হোটেলে গোপনে হানা দেয় পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল ১১ জন মহিলাকে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে হোটেলের ম্যানেজার সহ ১২জনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। তাদের বসিরহাটের এসিজেএমের আদালতে তোলা হলে বিচারক ম্যানেজারকে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজত এবং বাকিদের ১৪ দিন জেল হেফাজাতের নির্দেশ দেন।সিল করে দেওয়া হয় গোটা হোটেলটি।