পাটনাঃ ‘অনেক হয়েছে, এবার বাড়ি ফিরে আয়। ‘ শুক্রবার এভাবেই আবেগতাড়িত হয়ে বড় ছেলেকে বাড়ি ফিরে আসার আর্তি জানালেন রাবড়ি। গত বছর রাঁচিতে বাবাকে দেখে আসার পর আর বাড়ি ফেরেন নি তেজ প্রতাপ। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত বছর আদালতে নিজের সদ্য বিবাহিত স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন জানিয়ে, ফেরার পথে বাবাকে দেখতে গিয়েছিলেন তেজ। কিন্তু তারপর আর বাড়িতে ফিরে আসেননি তিনি। এক বছর এভাবেই পরিবার ছেড়ে রাজধানী পাটনায় গিয়ে বসবাস করছেন তিনি। তার সিদ্ধান্তে, সন্তান বিরহে ভেঙে পড়েছেন রাবড়ি। তাই ছেলের কাছে তার কাতর আর্তি, ‘ অনেক হয়েছে, এবার বাড়ি ফিরে আয়। ‘

অন্যদিকে, বর্তমানে জেল বন্দী অবস্থায় রাঁচি হাসপাতালে চিকিতসারত লালু। তাকে নিয়েও যথেষ্ট উদ্বিগ্ন রাবড়ি। এমন অবস্থায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা আরজেডি প্রধান লালু প্রসাদ যাদবের স্ত্রী। বলেন, ” আমি লালুজির অভাব বোধ করছি। তার না থাকা সত্যিই বেদনা দায়ক। তাকে ছাড়া সব কিছুই বৃথা। “

সাত দফা লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দিনের ভোট গ্রহণ পর্ব শেষ হয়েছে বিহারে। ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া শুরুর আগেই নিজের দলীয় পদ ছেড়ে দেন তিনি। নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে জানান, ‘আরজেডি-র ছাত্র শাখার প্রধান পদ থেকে ইস্তফা দিচ্ছি। যারা ভাবে আমি বোকা, তারা নিজেরাই নির্বোধ। আমি ভালো করেই জানি, কার যোগ্যতা কতটা।’ যা তীব্র সংকটের ছায়া ফেলেছে লালুপ্রসাদের পরিবারে। পরিবারের বড় ছেলে হয়েও বড় ছেলের জায়গা পান নি তিনি। উপ মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন তেজস্বী।

তাছাড়া, সেওহার থেকে তার পছন্দের লোককে প্রার্থী না করায় ছোট ভাই তেজস্বীর ওপর অসন্তুষ্ট ছিলেন তেজ প্রতাপ। গত বছর মে মাসে প্রবীণ আরজেডি নেতার মেয়ে ঐশ্বর্য রাইয়ের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তেজ। কিন্তু সম্পর্ক ভাল না থাকায় বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এমতাবস্থায়, তার বারণ স্বত্ত্বেও তার শ্বশুরকে এই আসন থেকে প্রার্থী করায় ক্ষোভ ওঠে চরমে। যার জেরেই এমন সিদ্ধান্ত নেন তেজ।

পরিবার ছেড়ে এক বছর আলাদা থাকা ছেলেকে ফিরিয়ে আনতে চেয়ে রাবড়ির আর্তি, ” বাহুত হুয়া, লৌট আও বেটা “। রাবড়ি দেবী সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ” তার দুই ছেলে তেজ প্রতাপ যাদব ও তেজস্বী যাদবের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। কাউকেই আলাদা করে দেখেন না তিনি। ” ” এ সবই ভুল ধারণা। এসব তার পরিবারকে বিচ্ছিন্ন করার ঘৃণ্য চক্রান্ত।” “কিছু মানুষ আমার ছেলেকে ভুল বোঝাচ্ছেন। হতে পারে এর পিছনে আমাদের শত্রু জেডি(ইউ) এবং বিজেপির হাত আছে। ” তিনি আরও বলেন, রোজ ছেলের সঙ্গে টেলিফোনে কথাও হয় তার।