আবুধাবি: দিল্লি ক্যাপিটালস টুর্নামেন্টে প্রথম হারের মুখ দেখলেও দলের ফাস্ট বোলার কাগিসো রাবাদার মুকুটে নয়া পালক। গত ম্যাচেই মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের লাসিথ মালিঙ্গার রেকর্ড ভেঙে নয়া রেকর্ড সেট করেছিলেন প্রোটিয়া পেসার। আর মঙ্গলবার সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ২১ রানে ২ উইকেট নিয়ে নিজের রেকর্ড নিজেই বাড়িয়ে নিলেন রাবাদা।

মঙ্গলবারের ম্যাচ নিয়ে আইপিএলে টানা দশ ম্যাচে ২ বা তার বেশি সংখ্যক উইকেট সংগ্রহ করলেন প্রোটিয়া পেসার। এর আগে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পেসার লাসিথ মালিঙ্গার টানা আট ম্যাচে ২ বার তার বেশি উইকেট নেওয়ার নজির ছিল। কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ৩১ রানে ২ উইকেট নিয়ে সেই রেকর্ডে থাবা বসিয়েছিলেন রাবাদা। এরপর গত ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে ২৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সেই রেকর্ড টপকে গিয়েছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ২১ রান খরচ করে ২ উইকেট নিয়ে আইপিএলে টানা দশ ম্যাচে দুই বা তার বেশি উইকেটের মালিক হলেন দিল্লি পেসার। শেষ দশ ম্যাচে রাবাদার বোলিং পরিসংখ্যান অনেকটা এইরকম- বিপক্ষ আরসিবি ২১/৪, বিপক্ষ কেকেআর ৪২/২, বিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২২/৪, বিপক্ষ মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ৩৮/২, বিপক্ষ কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ২৩/২, বিপক্ষ রাজস্থান রয়্যালস ৩৭/২, বিপক্ষ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ৩১/২, বিপক্ষ কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ২৮/২, বিপক্ষ চেন্নাই সুপার কিংস ২৬/৩, বিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২১/২।

উল্লেখ্য আইপিএলের ইতিহাসে সেরা বোলিং গড় (১৬.৬০) এবং সেরা স্ট্রাইক রেট (১২.৬৮) বোলার রাবাদা মঙ্গলবার কিংস ইলেভেন পেসার মহম্মদ শামির থেকে পার্পল ক্যাপও ছিনিয়ে নিয়েছেন। যদিও তাঁর ঈর্ষনীয় বোলিং পারফরম্যান্স এদিন সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে জয় এনে দিতে পারেনি দিল্লি ক্যাপিটালসকে।

প্রথমে ব্যাট করে ডেভিড ওয়ার্নারের দল ২০ ওভারে চার উইকেট হারিয়ে ১৬২ রান তোলে সানরাইজার্স। জবাবে রান তাড়া করতে নেমে ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪৭ রানের বেশি তুলতে পারেনি দিল্লি। ১৫ রানে সানরাইজার্সের এই জয় টুর্নামেন্টে তাদের প্রথম জয়। অন্যদিকে প্রথম দু’ম্যাচ জয়ের পর তৃতীয় ম্যাচে প্রথম হারের মুখ দেখল শ্রেয়স আইয়ারের দিল্লি ক্যাপিটালস।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।