কলকাতা: শতবর্ষের আলোয় ক্লাবকর্তা-কোয়েস কর্তা দ্বন্দ্ব সেভাবে মাথাচাড়া দেওয়ার সুযোগ পেল না বৃহস্পতিবারের নেতাজি ইন্ডোরে। কিন্তু ইনভেস্টর গ্রুপ যে ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দিয়ে দিয়েছে মরশুম শেষে গাঁটছড়া খোলার। শতবর্ষ অনুষ্ঠানে সেভাবে চোখে পড়ল না কোয়েসের কোনও উচ্চপদস্থ কর্তা-ব্যক্তিকেও। যাদবপুরের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকলেও নেতাজি ইন্ডোরে মঞ্চে উঠলেন না কোচ আলেজান্দ্রো।

বোরহা-কোলাডোদের ‘ফর্ম্যাল’ উপস্থিতি সত্ত্বেও কোথাও যেন পরিলক্ষিত হচ্ছিল তালমিলের অভাব। তাই মূল অনুষ্ঠান চলাকালীন গ্যালারি থেকে উড়ে এল কোয়েসের পাশে থাকার বার্তা। তারা যে কোয়েসকে কোনওভাবেই ছাড়তে চান না, বারংবারের মত এদিনও ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন সমর্থকেরা। এমন সময় অনুষ্ঠানের মাঝপথে দেখা মিলল কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের সিইও সঞ্জিত সেনের। শতবর্ষ অনুষ্ঠানে কোয়েসের প্রতিনিধি হিসেবে তাঁর কাছে যে প্রশ্নবাণ উড়ে যাবে, সেটাই স্বাভাবিক। হলও ঠিক তাই।

তবে ধরি মাছ, না ছুঁই পানির মত সযত্নে সাংবাদিকদের সামলালেন কোয়েস ইস্টবেঙ্গল সিইও। ক্লাবের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে এসে উচ্ছ্বসিত সঞ্জিত সেন জানালেন, ‘সবাই মিলে আমরা এমন একটা দিন উদযাপন করছি সেটাই বড় ব্যাপার।’ সঞ্জিতবাবুর এই মন্তব্যের পরেই পালটা তাঁর দিকে প্রশ্ন উড়ে যায় সবাই মিলে আনন্দের মাঝেও ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের কাছে এমন অনেক খবর ভেসে আসছে, যা কোনওভাবেই আশ্বস্ত করতে পারছে না তাদের। উত্তরে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল সিইও খানিকটা আশ্বস্ত করে জানান, ‘যে কোনও অর্গানাইজেশনকেই কিছু প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। এক্ষেত্রেও মালিকপক্ষ যথেষ্টই পরিণত। কোনও চিন্তা নেই।’

তাহলে ক্লাবকে নিয়ে কোয়েসের চিন্তাভাবনা আগামিদিনে ঠিক কী? সযত্নে এই প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে সঞ্জিতবাবু জানালেন, ‘আমি কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের কর্মচারী মাত্র। আমার কাছে এবিষয়ে কোনও নির্দেশিকা নেই। মালিকপক্ষদের মধ্যে ফলপ্রসূ মিটিংয়ের মধ্যে দিয়ে সমাধান বেরিয়ে আসবে। সেরা টিমই খেলবে, ভালোভাবে খেলবে। আমরা জিতব।’ তবে ক্লাবের সংস্কৃতির কথা মাথায় রেখে ১ অগাস্টে কি ক্লাবের মাঠে অনুশীলনে রাজি হতে পারতেন না আলেজান্দ্রো?

প্রথম থেকেই ফুটবল ও সিনিয়র টিম সংক্রান্ত সমস্ত বিষয়ে আমরা কোচকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছি, জানান সঞ্জিত সেন। পাশাপাশি ক্লাবের জার্সি গায়ে মাত্র পাঁচ মিনিটের জন্য খেলে চলতি মরশুমেই অবসর নিতে চান ক্লাবের শতবর্ষের সেরা আবিষ্কার বাইচুং, এপ্রসঙ্গে মরশুম শুরু হলে কোচের সঙ্গে কথা বলে প্রস্তাব বাস্তবায়নের কথা জানান তিনি।