স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : ইন্ডিয়ান হোটেলস কোম্পানি লিমিটেড (আইএইচসিএল) এর গুরমেট ফুড ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম, কিউমিন আজ কলকাতায় সাড়ম্বরে আত্মপ্রকাশ করলো। কলকাতায় বহুপ্রতীক্ষিত কিউমিন লঞ্চের প্রথম পর্বে তাজ ও ভিভান্তা এর সুবিখ্যাত নামিদামি রেস্তোরাঁগুলি থেকে খাবার পৌঁছে দেওয়া হবে আপনার বাড়ির আরামদায়ক পরিবেশে । অতিথিরা চারটি সুপ্রসিদ্ধ ঐতিহ্যশালী রেস্তোঁরা যেমন তাজ বেঙ্গল, কলকাতার চিনোইসেরি , সোনারগাঁও ও ক্যাল ২৭ এবং ভিভান্তা, কলকাতা ইএম বাইপাস এর মিন্ট থেকে খাবার অর্ডার করতে পারবেন।

এই সূচনা প্রসঙ্গে শ্রী মনিশ গুপ্তা, এরিয়া ডিরেক্টর -ইস্ট ও জেনারেল ম্যানেজার, তাজ বেঙ্গল বলেন, “ইতিমধ্যেই কলকাতা রান্নার সুগুনের জন্য সারাদেশে গর্বের সাথে পরিচিত। আমরা কলকাতায় কিউমিন শুরু করতে পেরে আনন্দিত, কিউমিন হলো এক গুরমেট ফুড ডেলিভারি পরিষেবা যা গ্রাহকদের ক্রমবর্ধমান অনলাইনে রন্ধনসম্পর্কীয় পরিষেবার চাহিদা পূরণ করবে। কলকাতায় আইএইচসিএল এর ল্যান্ডমার্ক হোটেলগুলি তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে বিভিন্ন সুস্বাদু রান্নাকরা পদ এবং রন্ধন সম্পর্কীয় উদ্ভাবনের জন্য সুবিদিত এবং আমাদের সেই সুনামধন্য রেস্তোঁরার অভিজ্ঞতা এখন অথিতির বাড়ির আরামদায়ক পরিবেশে পৌঁছে দেওয়াই আমাদের কাছে বিশেষ লক্ষ্য।”

তাঁরা আরও জানাচ্ছেন, ‘বিখ্যাত ও পুরষ্কারপ্রাপ্ত শহরের প্রথম খাঁটি চাইনিজ ফাইন ডাইনিংরেস্তোরাঁ চিনোইসেরি থেকে শুরু করে, বহু পুরষ্কারপ্রাপ্ত সোনারগাঁও এর সুবিখ্যাত পেশোয়ারী ও বাঙালী খাবার এবং কলকাতার ট্রেন্ডি মাল্টি-কুইজিন রেস্তোরাঁ ক্যাল ২৭ এবং আধুনিক পছন্দের মিন্ট এর সুবিখ্যাত সুস্বাদু খাবারগুলি কিউমিন সরবরাহ করে খাদ্যরসিকদের অবশ্যই আনন্দিত করবে। আপনার বাড়ির আরামে এই সুনিপুন মানের অথেন্টিক খাওয়ারের অভিজ্ঞতা আপনাকে উষ্ণ আতিথেয়তায় নস্টালজিক করে তুলবে। এই ডিজিটাল মেনুতেঅন্তর্ভুক্ত থাকবে সর্বোত্তম এবং বহুল পছেন্দের – ডাল সোনারগাঁও, চিংড়ি মালাই কারি, সোনারগাঁও এর কষা মাংশ , চিনোইসেরি থেকে ক্রিস্পি ফ্রায়েড স্পিনাচ এবং ডিমসুমস এবং ক্যাল ২৭ থেকে একটি দুর্দান্ত থিন ক্রাস্ট পিজ্জা।

বিশেষ নজরদারিতে কঠোর ভাবে সুরক্ষা এবং স্বাস্থ্য বিধি মেনে খাবার পৌঁছে দেওয়ার ব্যাপারটিও কিউমিন অথিতিদের জন্য সুনিশ্চিত করছে । এতে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে কন্টাক্টলেস ডেলিভারি ও ডেলিভারি এগ্জিকিউটিভদের প্রতিরক্ষামূলক গিয়ার এর বাধ্যতামূলক ব্যবহার ও পুরোপুরি স্যানিটাইজড করা গাড়িতে করে খাওয়ারের ডেলিভারি করার মতো ব্যাপারগুলিও। প্যাকেজিংটি পরিবেশ বান্ধবউপকরণ ব্যবহার করে তৈরী এবং ডেলিভারির সময় খাবার সংরক্ষণের জন্য কাস্টমাইজড ইনসুলেশন বক্স ব্যবহার করা হবে ।
কিউমিন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটি খুব শিগগিরই কলকাতায় চালু হবে এবং আগামী মাসগুলিতে প্রমোদপ্রিয় খাঁটি শিল্পী ব্রান্ডের গুরমেট কিউমিন শপ শুরু করা হবে।’ কলকাতায় অতিথিরা তাদের অর্ডার দেওয়ার জন্য ডেডিকেটেড একটি টোল-ফ্রি নম্বর রয়েছে সেখানে কল করতে অর্ডার দিতে পারেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ