জাকার্তা: কোয়ার্টারে জাপানের অকুহারাকে স্ট্রেট সেটে হারিয়ে আগেই পৌঁছে গিয়েছিলেন সেমিতে। শনিবার বিশ্বের দু’নম্বর চেন জু ফেইকে হারিয়ে মরশুমের প্রথম ফাইনাল নিশ্চিত করলেন ভারতীয় শাটলার পিভি সিন্ধু। কোয়ার্টারের রেশ ধরে রেখেই এদিন ইন্দোনেশিয়া ওপেনের শেষ চারের লড়াইয়ে স্ট্রেট সেটে বাজিমাত করলেন বিশ্বের পাঁচ নম্বর। সেমিতে সিন্ধুর পক্ষে ম্যাচের ফল ২১-১৯, ২১-১০।

অল ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন চিনের চেন জু ফেইকে হারাতে এদিন মাত্র ৪৬ মিনিট সময় নিলেন হায়দরাবাদি শাটলার। গোটা ম্যাচে আধিপত্য নিয়ে খেলেই মরশুমের প্রথম ফাইনাল নিশ্চিত করেন রিও অলিম্পিকের রুপোজয়ী। বিশ্বের দু’নম্বর চেনের বিরুদ্ধে অষ্টম সাক্ষাতে সিন্ধুর এটি পঞ্চম জয়। তবে সেমিফাইনালে প্রথম গেমের শুরুটা এদিন বিশেষ ভালো হয়নি সিন্ধুর জন্য। টানা ৩টি পয়েন্ট খুঁইয়ে শুরুতে এদিন চাপে পড়ে যান বিশ্বের পাঁচ নম্বর। প্রথম গেমে একসময় ১৪-১৮ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েন গোপীচাঁদের ছাত্রী।

সেখান থেকে সেমিফাইনালে অসাধারণ কামব্যাক করেন ভারতীয় শাটলার। দুরন্ত ওভারহেড ক্রস-কোর্ট ড্রপে ম্যাচে ফেরেন তিনি। সেখান থেকে আর পিছনে ফিরে তাকাননি সিন্ধু। চিনা প্রতিদ্বন্দ্বীকে দাঁড় করিয়ে ২১-১৯ ব্যবধানে প্রথম সেট মুঠোয় ভরে নেন তিনি। ইস্তোরার ইন্ডোর স্পোর্টিং এরিনার গ্যালারিতে ‘সিন্ধু…সিন্ধু’ ধ্বনি ভারতীয় শাটলারের জয় তরান্বিত করে।

দ্বিতীয় সেটের শুরুটাও একেবারেই ভালো হয়নি হায়দরাবাদি শাটলারের। চিনা প্রতিদ্বন্দ্বীর কাছে দ্বিতীয় সেটের শুরুতে ০-৪ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েন সিন্ধু। ধীরে ধীরে ফের ম্যাচে ছন্দ খুঁজে নেন তিনি। এরপর দ্বিতীয় গেমে লড়াইটা কার্যত একপেশে হয়ে দাঁড়ায় সিন্ধুর পক্ষে। ১১টি ম্যাচ পয়েন্টে দাঁড়িয়ে সিন্ধুর প্রতিদ্বন্দ্বী একটি ম্যাচ পয়েন্ট বাঁচাতে সক্ষম হলেও বেশিক্ষণ ম্যাচের রাশ ধরে রাখতে পারেননি চেন জু ফেই। শেষমেষ ২১-১০ ব্যবধানে দ্বিতীয় সেট জিতে নিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করে নেন সিন্ধু।

মরশুমের প্রথম খেতাব ঘরে তুলতে ফাইনালে সিন্ধু মুখোমুখি হবেন তৃতীয় বাছাই আকানে ইয়ামাগুচির। প্রথম সেমিফাইনালে বিশ্বের এক নম্বর তাই জু জিংকে শনিবার স্ট্রেট সেটে হারালেন জাপানি শাটলার। ইয়ামাগুচির সঙ্গে হেড টু হেড পরিসংখ্যানে পাল্লা অনেকটাই ভারি সিন্ধুর দিকে। দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর মধ্যে ১৪ বারের মুখোমুখি সাক্ষাতে ১০ বারই ফলাফল গিয়েছে ভারতীয় শাটলারের দিকে। যার মধ্যে ৪টি’তে স্ট্রেট সেটে জিতেছেন সিন্ধু। তাই রবিবার মরশুমের প্রথম খেতাব জয়ে যে অ্যাডভান্টেজ সিন্ধু, তা বলাই যায়।