পাটনা: প্রচারে আসার কৌশল এমনই বলছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল। আর প্লুরাল্স পার্টির দাবি, নির্বাচন নিরপেক্ষ করতে রাজ্যপাল অবিলন্বে রাষ্ট্রপতি শাসনের পথ নিন।

রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি তুলে রাজভবন অভিযান করার সময় পুলিশি হেফাজতে যেতে হলো বিহারের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী পুষ্পম প্রিয়া চৌধুরীকে। লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্সের প্রাক্তনি তথা বিহারের রাজনীতিতে নবাগতা পুষ্পম প্রিয়া ইতিমধ্যেই আলোচিত। তাঁকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

পুষ্পম প্রিয়ার দল প্লুরাল্স পার্টি একে গণতন্ত্রের উপর আঘাত বলেই দাবি করেছে। নেত্রীর অবিলম্বে মুক্তি চেয়ে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। নির্বাচনে ২৪৩টি আসনেই প্রার্থী দিয়েছেন পুষ্পম প্রিয়া চৌধুরী। তাঁকে নিয়ে চর্চা চলছে। বাঁকিপুর কেন্দ্রে তিনি প্রার্থী।

আধুনিক বিহার গড়তে পুষ্পম প্রিয়া আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি প্রচারে আসেন মূলত সোশ্যাল মিডিয়া দিয়ে। নিজেকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করে নবগঠিত প্লুরাল্স পার্টির ব্যানারে নির্বাচনে নেমেছেন উচ্চশিক্ষিত এই তরুণী।

দারভাঙ্গা তাঁর জন্মভিটে। পিতা প্রাক্তন জেডিইউ নেতা বিনোদ চৌধুরী। তাঁর কন্যা আমেরিকার সাসেক্স ও লন্ডনে পড়ে এসেছেন। বিহারের রাজনৈতিক মোড় পরিবর্তনের ডাক দেন পুষ্পম প্রিয়া।

প্রথমেই সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার বানান। এরপর বিহারের সব সংবাদপত্রে তাঁর ছবি দিয়ে প্লুরাল্স পার্টির নামে শুরু হয় প্রচার। এনডিএ ও মহাজোটের অনেক আগেই নিজেকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে পরিচিত করায় পুষ্পম প্রিয়াকে নিয়ে আলোচনা শুরু হয়।

মঙ্গলবার অনেক রাতে তাঁর রাজভবন অভিযানে বিহারের রাজনৈতিক মহল সরগরম।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I