চণ্ডীগড়: করোনা মোকাবিলায় গঠিত পিএম কেয়ার্স ফান্ডে জমা পড়া চিনা সংস্থার অনুদান ফেরানোর দাবিতে এবার সুর চড়ালেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংহ। এখনও পর্যন্ত পিএম কেয়ার্স ফান্ডে যত চিনা সংস্থার অনুদান এসেছে সেই টাকা অবিলম্বে ফেরানোর দাবিতে সওয়াল করেছেন অমরিন্দর।

লাদাখের গালওয়ান সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের পর থেকে ছবিটা বদলাতে শুরু করে। দেশজুড়ে চিনমা পণ্য বয়কটের ডাক জোরালো হচ্ছে। ইতিমধ্যেই চিনকে অর্থনৈতিকভাবে কোণঠাসা করার তৎপরতা শুরু করে দিয়েছে ভারত।

তবে এবার করোনা মোকাবিলায় গঠিত পিএম কেয়ার্স ফান্ডে জমা পড়া চিনা সংস্থার অনুদানও ফেরানোর দাবিতে সরব হয়েছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘চিনের বিরুদ্ধে আমাদের কঠিন অবস্থান নেওয়া উচিত। যাদের হাতে আমাদের সেনা খুন হলেন, তাদের টাকা অনুদান হিসাবে নেওয়া কখনই উচিত নয়।’

করোনা মোকাবিলায় তৈরি হয় পিএম কেয়ার্স ফান্ড। মারণ ভাইরাসের মোকাবিলায় দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো আরও শক্তিশালী করতে এই টাকা খরচ হচ্ছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। জরুরিকালীন ভিত্তিতে তৈরি প্রধানমন্ত্রীর এই তহবিলে টাকা দেওয়া একাধিক চিনা সংস্থার নাম করেছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী। অবিলম্বে সেই সংস্থাগুলির সঙ্গে কথা বলে তাদের টাকা ফিরেয়ে দেওয়া উচিত বলে মনে করেন ক্যাপ্টেন।

ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারও চিনকে অর্থনৈতিকভাবে আঘাত করতে তৎপরতা নিয়েছে। সোমবারই বিহারে ব্রিজ তৈরির কাজে দুই চিনা সংস্থার টেন্ডার বাতিল করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। চিনের বহু অ্যাপও নিষিদ্ধ করেছে ভারত সরকার। একধাক্কায় ৫৯টি চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্র।

কেন্দ্রের অভিযোগ, এই ৫৯টি অ্যাপ ভারতের ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করছে। অ্যাপ ব্যবহারকারীর নাম, ঠিকানা, সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট, নানারকম গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের ওপর গোপনে নজরদারী চালায় এই অ্যাপ গুলি। এমনকী, ভারতের সার্বভৌমত্ব, সৌভ্রাতৃত্বকেও চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলছে বিদেশি এই অ্যাপগুলি। চিনের এই অ্যাপগুলি ভারতের প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তা নষ্ট করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ কেন্দ্রের।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV