ফাইল ছবি

পুনে: দুটি দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করে একাধিক মহিলাদের উদ্ধার করতে ফের সফল পুলিশ৷ পুনের দুটি পৃথক জায়গায় চলছিল এই দেহব্যবসার কাজ৷ খবর পেয়ে বুধবারই এই দুটি জায়গায় হানা দেয় পুলিশ৷ পুনের একটি অ্যাপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স থেকে এক দলিত এবং অন্য আরেক মহিলাকে উদ্ধার করে পুলিশ৷

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী, পূর্ব পুনের একটি স্পা-তে হানা দিয়ে অপর একটি দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করে পুলিশ৷ সেখান থেকে থাইল্যান্ডের তিন মহিলাকে উদ্ধার করা হয়৷ গ্রেফতার করা হয় স্পা-এর মালিককে৷ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করা হয়েছে৷

ফাইল ছবি

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবারই দেহব্যবসায় যুক্ত থাকার অভিযোগে আট জনকে গ্রেফতার করে পেরুম্বাদুর পুলিশ৷ এর মধ্যে ৩ জন মহিলা রয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ ধৃত আট জনের নাম হল, শ্যাম কুমার, জইশন, অনিল, রেজিশ, এলধো মাথাই, প্রিয়া, রেশিদা, স্মিশা৷ এদের সকলের বয়স ২৩ থেকে ৫২-র মধ্যে৷

ফাইল ছবি

সংবাদ সূত্রে জানা যায়, শ্যাম কুমার দীর্ঘদিন ধরে দেহব্যবসার কাজে হাত পাকিয়েছিল৷ পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত এই কাজের জন্য একমাস আগে একটি বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল চিন্থারমণি রোডে৷ প্রতিবেশীদের জানিয়েছিল, টাইলসের ব্যবসা রয়েছে তার৷ কিন্তু তার কার্যকলাপে প্রতিবেশীদের সন্দেহ হয়৷ কারণ প্রায়শই অনেক ছেলে-মেয়েদের সেখানে আনাগোনা চলত৷

ফাইল ছবি

মিথ্য কথাকে সত্যি প্রমাণের জন্য কুমার তার কম্পাউন্ডের দেওয়ালের টাইলস্ বসিয়েছিল৷ তবে ক্লায়েন্টদের সুবিধার জন্যই তা করা হয়েছিল বলে জানা গয়েছে, যাতে সকলের ওই ফ্ল্যাটটি চিনতে অসুবিধা না হয়৷ ধৃতদের পেরুমবাভুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে তোলা হয়৷