পুণে: বড়সড় মধুচক্রের পর্দাফাঁস করল পুলিশ৷ শুক্রবার দেহব্যবসায় জড়িত থাকার অপরাধে পুণেতে এক স্পা মালিককে গ্রেফতার করে পুলিশ এবং পাঁচ থাই মহিলাকে উদ্ধার করা হয়৷ জানা গিয়েছে, পুণের এক শপিং মলের মধ্যে একটি স্পা-তে দীর্ঘদিন ধরে এই দেহব্যবসার কাজ চলছিল৷ খবর পেয়ে আট মাস আগে সেখানে হাজির হয় পুণে রুরাল পুলিশ এবং স্পা-মালিককে গ্রেফতার করে দুমাসের জন্য সেই স্পা বন্ধ করে দেওয়া হয়৷

পরে এই স্পা ফের খোলা হয়, দেওয়া হয় নতুন নাম৷ পুলিশ সুপারিন্টেন্ডেন্ট সন্দীপ পাতিল খবর পেয়ে ওই স্পা সেন্টারে অপারেশনে নামেন৷ ইন্সপেক্টর পদ্মকর ঘনওয়াতের নেতৃত্বে একটি দল সেখানে পৌঁছয়৷ স্পা থেকে পাঁচ বিদেশিনীকে উদ্ধার করা হয়৷ এদের সকলকেই জোর করে দেহব্যবসার কাজে নামানো হয়েছিল বলে জানা যায়৷ গ্রেফতার করা হয় স্পা মালিককে৷

ইন্সপেক্টর রামেশ্বর ধোন্দে এক ইংরেজি সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ওই মহিলারা ট্যুরিস্ট ভিসাতে ভারতে এসেছিলেন৷ তাদেরকে জোর করে এই কাজে নামানো হয়৷ উদ্ধার হওয়া পাঁচ মহিলাকে হোমে পাঠানো হয়েছে৷ তদন্ত চলছে৷ এর আগে গুরুগ্রামে স্পা সেন্টারের আড়ালে রমরমিয়ে চলা দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করে পুলিশ৷ সোমবার গুরুগ্রামের পালম বিহারে আনসাল প্লাজা মলে একটি স্পা সেন্টার থেকে দেহব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে প্রায় ২৫ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ এদের মধ্যে ১৫ জন মহিলা বলে জানা যায়৷ সকলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়৷