নয়াদিল্লি: প্রমাণের অভাবে জামিন পেল পুলওয়ামা হামলার ষড়যন্ত্রকারী। প্রমাণের অভাবে চার্জশিট ফাইল করতে পারেনি এনআইএ। তাই বৃহস্পতিবার তাকে জামিন দিয়ে দেয় দিল্লি আদালত।

ইউসুফ চোপান নামে ওই ব্যক্তিকে জামিন দেওয়া হয়েছে এদিন। এই ঘটনার তদন্ত করছিল এনআইএ। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে চার্জশিট পেশ করতে পারেনি এই সংস্থা। ১৮০ দিনের মধ্যে চার্জশিট দাখিল করার কথা ছিল।

১৮০ দিন ধরেই হেফাজতে ছিল ইউসুফ চোপান। স্পেশাল এনআইএ বিচারপতি জানান, ১১ ফেব্রুয়ারি সেই সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়েছে। তিনি আরও জানান যে প্রমাণের অভাবে চার্জশিট দিতে পারেনি এনআইএ।

এদিন শর্ত সাপেক্ষে জামিন দেওয়া হয়েছে ওই ব্যক্তিকে। তাকে ৫০,০০০ টাকার বন্ডে জামিন নিতে হয়েছে। তাকে যখনই ডাকা হবে, তখনই তদন্তের যোগ দিতে হবে।

গত বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি দুপুরে এক ভয়াবহ বিস্ফোরণে রক্তে ঢেকে যায় কাশ্মীরের বরফ। সিআরপিএফ কনভয়ে হয় ভয়াবহ জঙ্গি হামলা। একের পর এক মৃতদেহ ছড়িয়ে পড়ে চারপাশে। সাম্প্রতিককালে এটাই সবথেকে বড় জঙ্গি হামলার। পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জয়েশ-ই-মহম্মদ সেই হামলার দায় স্বীকার করে। নতুন করে অবনতি হয় ভারত-পাকিস্তান সম্পর্কের।

৭০টি গাড়ি কনভয় করে এগিয়ে যাচ্ছিল সেদিন। কনভয়ে ছিল বাস, ট্রাক, এসইউভি গাড়ি। একেকটি বাসে ৩৫-৪০ জন জওয়ান। আচমকা উল্টো দিকে ছুটে আসে একটি মাহিন্দ্রা এসইউভি। মুহূর্তেই সব ছারখার। প্রচণ্ড শব্দ আর তারপরই চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায় মৃতদেহগুলি।

নিরাপত্তার ঘেরাটোপ পেরিয়ে ছুটে আসা ওই গাড়িটাতেই ছিল জয়েশ-ই-মহম্মদের আত্মহঘাতী জঙ্গি। আর সঙ্গে ছিল ৩০০ কেজি বিস্ফোরক। স্বাভাবিকভাবেই বিস্ফোরণের ভয়াবহতা ছিল প্রচণ্ড। ১০ কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা যায় শব্দ।