সিডনি: পূজার প্রাচীরে প্রতিহত অজি বোলিং! আর তাতে প্রশস্থ হল অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ভারতের ইতিহাস তৈরির আশা৷ কিন্তু আশাহত হলেন চেতেশ্বর পূজারা৷ অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথমবার ডাবল সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৭ রান দূরে থামলেন টিম ইন্ডিয়ার নম্বর তিন ব্যাটসম্যান৷ ১৯৩ রানে নাথান লায়নের শিকার পূজারা৷

এসসিজি-তে দ্বিতীয়ও দিন অজি বোলারদের বিরুদ্ধে লড়াই জারি ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের৷ চার উইকেটে ৩০৩ রানে শুক্রবার খেলা শুরু করে লাঞ্চে ভারতের স্কোর ছিল পাঁচ উইকেটে ৩৮৯ রান৷ হনুমা বিহারী প্যাভিলয়নে ফিরলেও লড়াই জারি ছিল পূজারার৷  পঞ্চম উইকেটে ১০১ রানের গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশিপ গড়ে ব্যক্তিগত ৪২ রানে নাথান লায়নের শিকার ছিলেন বিহারী৷ আর ব্যক্তিগত ১৮১ রানে লাঞ্চের পর খেলা শুরু করে ১২ রান যোগ করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন পূজারা৷ অতিরিক্ত ডিফেন্সিভ হতে গিয়ে লায়নের হাতে কট অ্যান্ড বোল্ড হন সৌরাষ্ট্রের রানমেশিন৷পূজারাও লায়নের শিকার৷

ব্যক্তিগত ১৩০ রানে এদিন খেলা শুরু করা পূজারা লাঞ্চের আগে যোগ করেন ৫১ রান৷ সাবলীল ভঙ্গিতেই টপকে যান দেড়শো রানের গণ্ডি৷ পূজারা প্রাচীরে প্রতিহত হন অজি বোলারদের প্রয়াস৷ সিরিজের প্রথম টেস্ট অ্যাডিলেড ওভালে ১২৩ রানের ইনিংস খেলেই তাঁর ফর্মের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পূজারা৷ তার পর মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টের পর সিডনিতে গোলাপি টেস্ট৷ শেষ দু’টি টেস্টে সেঞ্চুরি করে অস্ট্রেলিয়া সফরে তিনটি সেঞ্চুরি করে বৃহস্পতিবার সিডনি টেস্টের প্রথম দিনেই সুনীল গাভাস্করকে ছুঁয়েছিলেন পূজারা৷ তাঁর সামনে রয়েছে কেবল বিরাট কোহলি৷ ২০১৪-১৫ মরশুমে অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারতীয়দের সর্বাধিক চারটি টেস্ট সেঞ্চুরি রয়েছে কোহলির৷

ডাবল সেঞ্চুরি হাতছাড়া হলেও এদিন অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে সর্বাধিক বল ফেস করার ক্ষেত্রে রাহুল দ্রাবিড়কে পিছনে ফেলেছেন পূজারা৷ এদিন সর্বাধির ১২০৩ বল খেলার রেকর্ড ছিল দ্রাবিড়ের দখলে৷ কিন্তু শুক্রবার সাকালেই দ্রাবিড়কে টপকে নজির গড়েন পূজারা৷ টপকে যেতে পারতেন তাঁর ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানকেও৷

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আগে দু’টি ডাবল সেঞ্চুরি রয়েছে পূজারার৷ এদিন তৃতীয় ডাবল মিস করেন৷ ২০১২ প্রথমবার হায়দরাবাদ টেস্টে অজিদের বিরুদ্ধে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন৷ তার পর ২০১৭ রাঁচিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দ্বিশতরানের ইনিংস খেলেছিলেন৷ কিন্তু এদিন অল্পের জন্য থেমে যান৷ ১৯২ রানে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে জীবনদান পেয়েছিলেন৷ কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি৷ জীবনদান পাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই লায়নের হাতে সহজ ক্যাচ তুলে দিয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন ভারতীয় ক্রিকেটের নয়া ডিপেন্ডেবল৷