নয়াদিল্লি: দেশ জুড়ে চলছে লকডাউনের তৃতীয় দফা। ১৭ মে পর্যন্ত নতুন করে লকডাউন জারি করা হয়েছে। আর বাস-ট্রেনের মত পরিবহন চলছে না সেই ২৫ মার্চ থেকে।

তবে খুব শীঘ্র কিছু পরিবহন চালু করা হবে বলে জানালেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রী নীতিন গদকড়ি। বুধবার একথা জানিয়েছেন তিনি।

এদিক এক ভিডিও কনফারেন্সে গদকড়ি বলেন, ”বাস ও গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে শীঘ্রই কিছু গাইডলাইন দেওয়া হবে। তবে অবশ্যই সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মেনে চলার কথা উল্লেখ করেন তিনি। পাশাপাশি, গাড়ি চালানোর সময় হ্যান্ড ওয়াশ ব্যবহার করা, মাস্ক পরার কথাও মাথায় রাখতে হবে বলে জানান তিনি।

তৃতীয় দফার লকডাউন বেশ কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে আগেই।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকেই একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করা হয়েছে। সেই নির্দেশিকা অনুযায়ী, জেলার মধ্যে একমাত্র প্রাইভেট গাড়ি ও ট্যাক্সি পরিষেবা চলতে পারে। এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাওয়ার জন্য অনুমোদন লাগবে। যে কোনও চার চাকার গাড়ি ২ জনের বেশি যাত্রী ওঠাতে পারবে না।

আর দুচাকার গাড়ি কোনও দ্বিতীয় যাত্রীকে পিছনে বসাতে পারবে না। সরাষ্ট্রমন্ত্রক আরও জানাচ্ছে, অরেঞ্জ জোনে বাসগুলি অটলভাবে চলাচল করার অনুমতি পায়নি। কেবলমাত্রা গ্রিন জোনে বাস চলাচলচ করার সুযোগ পেয়েছে।

জেলার মধ্যে যে নিয়ম রয়েছে- ১) প্রাইভেট গাড়িতে কেবল একজন চালক ও দুজন যাত্রীর বেশি কেউ থাকতে পারবে না। দুচাকার গাড়িতে একজনই বসতে পারবে। ২) ট্যাক্সি বা ক্যাবেও চালক সহ বড়জোর ২ জন যাত্রী চড়তে পারবে। ৩) বাস চলার অনুমতি নেই।

দুটি জেলার মধ্যে- ১) ১৭ মে পর্যন্ত কোনও বাস চলবে না। ২) প্রাইভেট গাড়ি আগে থেকে অনুমোদন পেয়ে চলবে, তাও একমাত্র জরুরি কালীন অবস্থায় যেমন ওষুধ সরবরাহ, অসুস্থতা বা মৃত্যু। ৩) জিনিস পত্র সরবরাহ করার গাড়ি চলাচলের জন্যও আগে ছেকে অনুমতি দরকার পড়বে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ