শ্রীনগর: ভারতে জনপ্রিয় মোবাইল ফোন গেমের তালিকায় একেবারে উপরের দিকে এখন পাবজি৷ কমবয়সীরা দিনরাত পাবজির নেশায় বুঁদ৷ নাওয়া খাওয়া ভুলে মগ্ন শুধু পাবজিতে৷ এত জনপ্রিয় এই মোবাইল ফোন গেমটি বন্ধ করে দেওয়ার উঠল দাবি৷ কারণ এই গেমের কারণে গোল্লায় যেতে বসেছে পড়ুয়াদের পড়াশুনা৷ দিনদিন খারাপ হচ্ছে তাদের রেজাল্ট৷ সবচেয়ে খারাপ অবস্থা দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের৷ সামনেই তাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ দুটি পরীক্ষা৷ কোথায় এখন বই খাতায় মুখ গুঁজে বসে থাকার কথা৷ তারাই কিনা হাতে মোবাইল নিয়ে পাবজি খেলতে ব্যস্ত৷

জম্মু কাশ্মীর স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অবিলম্বে পাবজি গেমটি নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছে৷ ছাত্র সংগঠনটি রাজ্যের গভর্নর সত্যপাল নায়েককে চিঠি লিখে পাবজী নিষিদ্ধ করার আর্জি জানিয়েছে৷ ডেপুটি চেয়ারম্যান রাকিফ মাখদুমিকে উদ্ধৃত করে প্রিস্টাইন কাশ্মীর জানিয়েছে, গেমটি অবিলম্বে নিষিদ্ধ করতে হবে৷ দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের পরীক্ষার ফল খারাপ হচ্ছে এই পাবজির কারণে৷ পাবজির নেশা মাদকের নেশার থেকে মারাত্মক৷ কমবয়সীরা পড়াশুনা শিকেয় তুলে ২৪ ঘণ্টা মোবাইল ফোন হাতে নিয়ে পাবজি খেলে৷ তাই রাজ্যপালকে আবেদন এই গেমটি নিষিদ্ধ করার৷

জম্মু কাশ্মীর স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান আবরার আহমেদ ভাট পাবজি মোবাইলকে ‘ফিউচার স্পয়লার’ বলে কটাক্ষ করেছেন৷ তিনিও দ্রুত গেমটি নিষিদ্ধ করার দাবি জানিয়েছেন৷ পাবজি মোবাইল পাবলিশারের তরফে এই নিয়ে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি৷ নেতিবাচক কারণে পাবজি এর আগেও বিপাকে পড়েছে৷ গত বছর একটি পোস্ট ভাইরাল হয়৷ সেখানে দাবি করা হয় মুম্বইতে পাবজি গেমটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে৷ তবে কিছুক্ষণ পর জানা যায় সেটি ভুয়ো পোস্ট৷

Advertisements