লখনউ: লোকসভা নির্বাচনে গো-হারান হার হয়েছে। কিন্তু আগামী বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের দখল নেবে তাঁর দল। শুক্রবার লখনউতে আয়োজিত এক সাংবাদিক বৈঠকে এমনই হুঙ্কার দিলেন প্রগতিশীল সমাজবাদী পার্টি সুপ্রিমো শিবপাল সিং যাদব।

এদিন লখনউতে নিজেদের দলীয় কার্যালয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকের আয়োজন করেন তিনি। এই সাংবাদিক বৈঠক থেকেই নিজের বক্তব্য শানিয়ে তিনি বলেন, ২০২২ সালেই উত্তরপ্রদেশে সরকার গঠন করবে পিএসপি।

“আমরা ২০২২ সালের বিধানসভা নির্বাচনে লড়ব। ২০২২ সালেই উত্তরপ্রদেশে সরকার গঠন করবে আমাদের দল।”

সম্প্রতি লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে একটি আসনেও জিততে পারে নি শিবপালের দল। সমাজবাদী পার্টি প্রধান মুলায়ম সিং যাদবের দাদা প্রগতিশীল সমাজবাদী পার্টি সুপ্রিমো বলেন, কানাঘুষো গুজব ছড়াচ্ছিল সমাজবাদী পার্টির সঙ্গে জোট বাঁধব আমরা। কিন্তু আদতে তা একেবারেই মিথ্যা। এ বিষয়ে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বলেন, “জোটের বিষয়ে গুজব শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু এই মিথ্যা রটনার অবসান হওয়া প্রয়োজন।”

তিনি আরও বলেন,তাঁর দলের নির্বাচনী প্রতীকই(চাবি) প্রমাণ করে সেটাই তাঁদের জেতার সূত্র। তবে দলকে আরও মজবুত হতে হবে। তাই ২০২২য়েই উত্তরপ্রদেশে ক্ষমতায় আসবে দল। একাই সরকার গঠন করবে পিএসপি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে শিবপালকে দল থেকে তাড়িয়ে দিয়েছিলেন অখিলেশ। মেনপুরি লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত এতাওয়া জেলার সাইফাই গ্রামের বাসিন্দাদের কাছে পরিবারের গদ্দারের ঘাড় ধাক্কা খাওয়ার বিষয়টি অচিরেই চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছিল। তারপরেই ২০১৭ সালে বিধানসভা নির্বাচন মিটলে নিজের দল গঠন করবেন বলে ঘোষণা করেন তিনি। ২০১৮ সালে নিজের দল গঠনের ছাড়পত্র পান। এরপর সাইফাই গ্রামের যুব সম্প্রদায় দুটি দলে ভাগ হয়ে যায়। একদল অখিলেশের সমর্থক এবং অন্যরা শিবপালের সমর্থক হয়ে দাঁড়ান।