কলকাতা: করোনার লাগামছাড়া সংক্রমণ গোটা দেশে। প্রতিনিদন হাজার-হাজার মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলছে প্রতিষেধক তৈরির কাজ। এই পরিস্থিতিতে এবার আশঙ্কাজনক করোনা রোগীদের ক্ষেত্রে চর্মরোগ সোরিয়াসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ ইটোলিজুমাব ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে দেশের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিসিজিএ।

দেশে লাফিয়ে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। প্রতিদিন সংক্রমণের নিরিখ রেকর্ড ভাঙছে। শনিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, দেশে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৮ লক্ষ। দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৯১৬। একদিনে সংক্রমণে ফের নতুন রেকর্ড। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন মোট ২৭ হাজার ১১৪ জন। দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৫১৯ জনের। দেশে এই মুহূর্তে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২ হাজার ১২৩।

এই পরিস্থিতিতে করোনার প্রতিষেধক তৈরির জোরদার তৎপরতা চলছে। ইতিমধ্যেই হায়দরাবাদের ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ভারত বায়োটেকের COVAXIN ও আহমেদাবাদের ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা জাইডাস ক্যাডিলার ZyCov-D— এই দু’টি করোনা প্রতিষেধকের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হতে চলেছে।

এছাড়াও লন্ডনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ও করোনা প্রতিষেধক তৈরিতে প্রাথমিকস্তরে সফলতা পেয়েছে বলে দাবি করেছএ। সব কিছু ঠিকঠাক চললে আগামী অক্টোবর মাস নাগাদ করোনার যম অক্সফোর্ড টিকা বাজারে মিলবে বলে দাবি করা হয়েছে।

এবার আশঙ্কাজনক করোনা রোগীদের ক্ষেত্রে চর্মরোগ সোরিয়াসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত ওষুধ ইটোলিজুমাব ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে দেশের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিসিজিএ। এইমসের চিকিৎসকদের নিয়ে একটি কমিটি তৈরি করা হয়েছে। ওই কমিটির বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ইটোলিজুমাব ব্যবহার করে সংকটজনক করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ভালো ফল মিলেছে।

ইতিমধ্যেই ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া আশঙ্কাজনক রোগীর ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট পরিমাণ মেনে ইটোলিজুমাব ব্যবহারে ছাড়পত্র দিয়েছে। চর্মরোগ সোরিয়াসিসের চিকিৎসার জন্য এই ওষুধটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে চিকিৎসকদের অনুমতি নিয়েই কেবলমাত্র নির্দিষ্ট কিছু লক্ষ্মণ থাকা সংকটজনক করোনা রোগীদের ওই ওষুধ দেওয়া যেতে পারে বলে জানিয়েছে ডিসিজিএ।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ