প্যারিস: প্রথম ম্যাচে লিভারপুলের কাছে হারের পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্বিতীয় ম্যাচে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়াল পিএসজি। শুধু দারুণভাবে ফিরে আসাই নয়, হাফডজন গোলে রেড স্টার বেলগ্রেডকে মাটি ধরাল তারা। সৌজন্যে ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমারের দুরন্ত হ্যাটট্রিক।

সার্বিয়ার চ্যাম্পিয়ন দলটিকে নিয়ে বুধবার কার্যত ছেলেখেলা করলেন নেইমার, কাভানিরা। সারা ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেডকে নিয়ে যত কম বলা যায় ততই ভাল। ম্যাচে ৭৫ শতাংশ বল নিজেদের দখলে রেখে বাজিমাৎ করে যায় প্যারিসের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটি। গোল লক্ষ্য করে এদিন ৩৪টি শট নেয় পিএসজি’র ফুটবলাররা।

২০ মিনিটে এদিন স্কোরশিটে প্রথম নাম তোলেন নেইমার দি স্যান্টোস জুনিয়র। বক্সের সামান্য বাইরে থেকে নেইমারের দুরন্ত বাঁক খাওয়ানো ফ্রি-কিক জড়িয়ে যায় জালে। এর ঠিক দু’মিনিট বাদেই ফের গোল। নিজের দ্বিতীয় গোলের সাথেই দলের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করে নেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। নেইমারের পর ৩৭ মিনিটে স্কোরশিটে নাম তোলেন কাভানি। একক দক্ষতায় দলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন তিনি। পিএসজি’র চতুর্থ গোলটি বিরতির ঠিক আগে। আর্জেন্তাইন ডি মারিয়ার গোলে বিরতিতে ৪-০ গোলে এগিয়ে যায় থমাস টাচেলের ছেলেরা।

প্রথমার্ধে চার গোলের পর দ্বিতীয়ার্ধে বিপক্ষের কফিনে আরও দুটি পেরেক পোঁতেন ফ্রান্সের বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক কিলিয়ান এমবাপে এবং ব্রাজিলিয়ান নেইমার। পিএসজি’র আক্রমণে ফালা ফালা হয়ে যায় রেড স্টার বেলগ্রেডের রক্ষণ। ৭০ মিনিটে দলের হয়ে পঞ্চম গোলটি করেন এমবাপে। ৭৪ মিনিটে খেলার বিপরীতে গিয়ে ব্যবধান কমায় রেড স্টার। কিন্তু ম্যাচে ফিরে আসার জন্য তা কোনওভাবেই যথেষ্ট ছিল না।

৮১ মিনিটে ফের গোল করে চলতি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে চতুর্থ হ্যাটট্রিকটি তুলে নেন নেইমার। বিপক্ষকে ৬-১ গোলের বিধ্বস্ত করেই মাঠ ছাড়ে প্যারিসের ক্লাবটি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পরবর্তী ম্যাচে লিভারপুলের মুখোমুখি হবে প্যারিসের ক্লাবটি।