তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: কয়েকশো বছরের প্রাচীণ ‘মুড়ি মেলা’ শেষে নদী পরিস্কারে হাত লাগালেন এলাকায় সমাজকর্মী হিসেবে পরিচিত লাল্টু চঁন্দ। একেবারে নিজের উদ্যোগে সোমবার দ্বারকেশ্বর নদীর চরে পড়ে থাকা শালপাতা একজায়গায় জড়ো করে পুড়িয়ে ফেললেন তিনি।

প্রসঙ্গত, বাঁকুড়ার কেঞ্জাকুড়া গ্রামে দ্বারকেশ্বর নদী তীরে সঞ্জীবনী মাতার মন্দির প্রাঙ্গনে ফি বছর মাঘ মাসের ৪ তারিখে অসংখ্য মানুষ ‘মুড়ি মেলা’য় অংশ নেন। এবারও তার ব্যতিক্রম ছিলনা।

রবিবার এখানে ‘মুড়ি মেলা’য় কয়েক হাজার মানুষ হাজির হন। তাদের ফেলে যাওয়া শাল পাতার ঠোঙা থেকে শুরু করে অন্যান্য ব্যবহৃত জিনিস এক জায়গায় জড়ো করে পুড়িয়ে ফেললেন তিনি। লাল্টু চন্দের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এই বিষয়ে লাল্টু চঁন্দ বলেন, এই নদীর জলে স্নান করার পাশাপাশি অনেকেই পানীয় হিসেবেও ব্যবহার করেন। নদী দূষণ ঠেকাতে আর নদীকে ভালোবেসে ফি বছর তাঁরা বন্ধুরা মিলে মেলার পর দিন এই কাজ করেন বলে তিনি জানান।