ওয়াশিংটন: মার্কিন শেতাঙ্গ পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের হত্যার প্রতিবাদে আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ বলপূর্বক দমনের নির্দেশ দেওয়ার পর বিক্ষোভকারীদের ‘অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসী’ বলে আখ্যা দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাছাড়া এই বিক্ষোভ দমনের জন্য সেনা নামানোর হুমকি দেয় ট্রাম্প প্রশাসন।

ট্রাম্প বলেছেন প্রতিবাদের নামে এমন ধ্বংসলীলা চলতে পারে না। ‌ ‌ বিক্ষোভকারীদের আচরণ আদৌ শান্তিপূর্ণ নয়। এই আভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসবাদের জন্য নিরপরাধ মানুষদের প্রাণ যাচ্ছে। এই মহান দেশকে সন্ত্রাস মুক্ত করা হবে। যারা এই বিক্ষোভে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তাদের কঠোরতম শাস্তি হবে।

২৫ মে মিনিয়াপোলিসে পুলিশের হাতে নির্মমভাবে নিহত হন কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড।প্রকাশ্যে শহরের রাস্তায় গলায় হাঁটু দিয়ে চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে ফ্লয়েডকে হত্যা করে পুলিশ।এদিকে আমেরিকা জুড়ে বিক্ষোভ ও অশান্তির আগুন ছড়িয়ে পড়ায় দেশটিতে ২০ হাজার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের এক কর্তা জানিয়েছেন, হিংসা মোকাবিলায় কমপক্ষে ২৮টি রাজ্যে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া রাজধানী ওয়াশিংটনে সেখানকার জাতীয় গার্ড বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে।

বিক্ষোভ থামাতে অধিকাংশ শহরে কারফিউ জারি করা হয়েছে কিন্তু তাতেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না। কারফিউ ভেঙে চলছে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ।এরইমধ্যে দেশটিতে পুলিশের গুলিতে অন্তত দুই বিক্ষোভকারী নিহত এবং চার পুলিশ গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারীকে।

এদিকে আবার নিহত ফ্লয়েড এবং প্রতিবাদকারীদের পাশে থেকে সংহতির বার্তা দিয়েছেন সুন্দর পিচাই, সত্য নাদেলা, টিম কুকের মতো বাণিজ্যের দুনিয়ার নেতৃবৃন্দরা। কর্পোরেট জগতের এই কর্তারা প্রতিবাদরত কৃষ্ণাঙ্গদের জানিয়ে দিয়েছেন, তারাও তাদের সঙ্গে রয়েছেন।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প