শিলিগুড়ি: আবারও কেন্দ্র-বিরোধিতায় সুর চড়ালেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এনআরসি-নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ফের কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনায় তৃণমূল সুপ্রিমো। সাফ জানালেন, কোনওভাবেই বাংলায় এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন কার্যকর করবেন না। এনপিআর নিয়েও একইভাবে কেন্দ্র-বিরোধিতায় অনড় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার শিলিগুড়িতে উত্তরবঙ্গ উৎসবের সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকেই কেন্দ্রকে বিঁধে একের এপর এক তোপ দাগতে শুরু করেন মমতা। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলা নিয়েও এদিন সরব হন তৃণমূলনেত্রী। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলা হয়েছে। মাঝে মাঝেই ক্যাম্পাসে রাত হামলা হচ্ছে। একটি রাজনৈতিক দল ক্যাম্পাসে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। বাংলার মাটিতে হামলা বরদাস্ত করব না।’

বাংলায় বিভেদের রাজনীতির প্রসঙ্গ তুলেও এদিন বিজেপিকে আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপিকে বিঁধে মমতা বলেন, ‘বাংলার মাটিতে বিভেদ চলবে না। ভাগাভাগিতে মদত দেবেন না। ঐক্যবদ্ধ ভারতকেই আমরা ভালবাসি। আগামী ২২ জানুয়ারি পাহাড়ে নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ মিছিল করব।’

এরই পাশাপাশি এদিন আবারও সিএএ ও এনআরসি নিয়ে রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলনেত্রী বলেন, ‘এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন নিয়ে চিন্তা করবেন না। কাউকে দেশছাড়া হতে দেব না। আমরা সবাই নাগরিক। শুধুমাত্র ভোটের পাহারাদার নই। সারা বছর ধরে আমরা মানুষের পাহারাদারের কাজ করি।’

এনপিআর নিয়েও এদিন কেন্দ্রীয় সরকারকে তুলোধনা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এনপিআর নিয়ে কেন্দ্র ভুল বোঝাচ্ছে বলে অভিযোগ তৃণমূলনেত্রীর। এই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আগে এনপিআর নিয়ে অনেকে অনেক কথা বললেন। পরে তাঁরাই বৈঠকে গিয়ে যোগ দিলেন। চালাকি করে ওঁদের বুঝিয়ে দিল। আমি প্রতিবাদ করেছি, তাই যাইনি। কেউ সঙ্গে না থাকলে একাই প্রতিবাদ করব।’

এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইন ইস্যুতে প্রথম থেকেই কেন্দ্র-বিরোধিতায় সরব তৃণমূলনেত্রী। সোমবারই জানিয়েছেন বিরোধী দলগুলি রাজি থাকলে সিএএ ও এনআরসি নিয়ে বৈঠক করবেন। এমনকী আগামী ৩-৪ দিনের মধ্যে বাংলা বিধানসভাতেও নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করাবেন বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি অন্য রাজ্যগুলিও যাতে কেন্দ্র-বিরোধিতায় একইভাবে পদক্ষেপ করে এদিন সেব্যাপারেও আবেদন জানিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। এই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আর্জি, ‘সিএএ-র বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাশ করার জন্য সব রাজ্যের কাছে আবেদন জানাচ্ছি। এনপিআর নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের বলব, ভালো করে তা পড়ে নিতে।’