হাওড়া: রেলের বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে এবার পথে তৃণমূল। বেসরকারি সংস্থার হাতে রেলের ১৫১টি ট্রেনকে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পথে নামল তৃণমূল। মঙ্গলবার সকালে হাওড়ায় ডিআরএম অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখায় তারা।

তৃণমূল ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের তরফে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়, লক্ষ্মীরতন শুক্লা, আইএনটিটিইউসির হাওড়া জেলা সভাপতি অরূপেশ ভট্টাচার্য প্রমুখ। উল্লেখ্য, বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া ১৫১টি ট্রেনের মধ্যে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ১৫টি রুটের দূরপাল্লার ট্রেনও। গত ডিসেম্বর মাসেই এই ১৫১টি ট্রেনকে বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নীতি আয়োগ।

বেশ কিছু সংস্থা ইতিমধ্যেই ওই ট্রেন চালাতে আগ্রহী বলে জানিয়েছে। যার ফলস্বরূপ কয়েক দিনের মধ্যেই দরপত্র প্রক্রিয়া ডাকার কাজ শুরু হবে। এই বেসরকারিকরণের প্রতিবাদেই এদিন হাওড়ায় ডিআরএম অফিসের সামনে বিক্ষোভ হয় তৃণমূল ট্রেড ইউনিয়নের তরফে। প্রবল বৃষ্টির মধ্যেই কর্মসূচি চলে। রেলের বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে এদিন নরেন্দ্র মোদীর কুশপুতুল পুড়িয়ে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃত্ব।

এদিন অরূপ রায় বলেন, নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত ৬ জুলাই থেকে লাগাতার কর্মসূচি নিয়েছেন। গতকাল পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন হয়েছে। এরপর আজকে আমরা হাওড়ায় ডিআরএম অফিসের সামনে রেলের বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে কর্মসূচি নিয়েছি। রেল যাতে বেসরকারিকরণ না হয় কেন্দ্রীয় সরকারকে এই ভাবনা প্রত্যাহারের দাবি জানালাম। কেন্দ্রীয় সরকার রেলকে বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দিয়ে এভাবেই মানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। এতে রেলের ভাড়া বাড়বে। মান্থলির খরচ বাড়বে। মানুষের অধিকার থাকবে না। রেলের কর্মচারীরাও এতে ভয়ঙ্কর বিপদের মুখে পড়বে। তাদের অধিকার লঙ্ঘিত হবে। মানুষ একে ক্ষমা করবে না। রেলের বেসরকারিকরণের বিরুদ্ধে আমাদের লাগাতার আন্দোলন চলবে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ