লন্ডন : আমেরিকার প্রতিবাদের আচ ছড়িয়ে পড়ল ইউরোপেও। সেখানেও প্রচণ্ড বিক্ষোভ দেখা গেল। করোনাভাইরাস মোকাবিলার জন্য যখন ইউরোপের বিভিন্ন দেশে সমাবেশ করা নিষিদ্ধ, সেই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে জমায়েত এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন হতে দেখা গেল।

গত সপ্তাহে আমেরিকার একজন শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিককে নির্মম ভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। সেই ছবি ছড়িয়ে পড়তেই আমেরিকার বিভিন্ন শহরে প্রশাসনিক নৃশংসতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কারফিউ জারি করে সেনা নামানোর হুমকি ইত্যাদি দিয়ে এখনো দমন করা যায়নি প্রতিবাদীদের। উল্টে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ট্রাম্পের সমালোচনা এবং প্রতিবাদীদের প্রতি সহানুভূতি প্রদর্শন করতে দেখা যাচ্ছে।

এবার ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এই বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ল। ব্রিটেনের রাজধানী লন্ডনে বিক্ষোভকারীরা দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখায়। এসব বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেওয়া মানুষের মুখে আমেরিকা বিরোধী বেশ কিছু শ্লোগান শোনা যায়। আমেরিকার বিক্ষোভকারীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করে তারা সেন্ট্রাল লন্ডনে মিছিল করেন।

এছাড়া, ব্রিটিশ পার্লামেন্ট স্কোয়ারের সামনে হাজার হাজার মানুষ হাঁটু গেঁড়ে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখায়। লন্ডনে আরও বিক্ষোভ সমাবেশের পরিকল্পনা করছেন আয়োজকরা। নেদারল্যান্ডের রোটারড্যামে হাজার হাজার মানুষ শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ জানায়। সুইডেনের স্টকহোমে জন সমাবেশের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বহু মানুষ মার্কিন বর্বরতার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান।

গ্রিসের রাজধানী এথেন্সেও বিক্ষোভ হয়েছে। বিক্ষোভকারীদের অনেকেই আবার মার্কিন দূতাবাস লক্ষ্য করে ঢিল ফায়ারবোমা ইত্যাদি ছোঁড়ে। ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে বিক্ষোভের সময় প্রায় ১৫ হাজার মানুষের জমায়েত হয়। সেখানেও কিন্তু করোনা নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে পথে নামে মানুষ।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV