স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: কলকাতা থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিখোঁজ হয়ে যায় পূর্ব মেদিনীপুরের ময়না থানার গড় ময়নার যুবক সোমনাথ বেরা৷ তাঁকে খুন করে নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি তাঁর পরিবারের। এই ঘটনায় স্থানীয় এক টোটো চালকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

কিন্তু অভিযোগ পেয়েও দুষ্কৃতীদের ধরতে টালবাহানা করছে ময়না থানার পুলিশ বলে অভিযোগ। পুলিশি অসহযোগিতার অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার বিকেল থেকে ময়না থানার সামনে বিক্ষোভ দেখান এলাকার শতাধিক গ্রামবাসী৷ এর ফলে ময়না থানার সামনের রাস্তায় যাতায়াত দীর্ঘক্ষণ ধরে বন্ধ হয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন : পিকনিকে পর্যটকদের নৌকাডুবি, কোনওক্রমে রক্ষা যাত্রীদের

গড় ময়নার বাসিন্দাদের অভিযোগ, সোমনাথ কলকাতায় নিজের কাকুর কাছে কাজ করে। গত ২ জানুয়ারী কলকাতা থেকে প্রায় হাজার দশেক টাকা নিয়ে বাড়ি ফিরছিল৷ পথে শ্রীরামপুরের বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রথমে সে তাঁর দিদির বাড়িতে যায়। সেখান থেকে রাতে বাড়ি ফেরার জন্য বেরিয়ে স্থানীয় খেজুরতলায় একটি দোকানে গিয়ে কিছু জিনিস কেনে ছেলেটি। রাত্রি প্রায় ১০টা নাগাদ পরিবার থেকে শেষবার তাঁর সঙ্গে মোবাইলে কথা হয়। তখন সোমনাথ জানিয়েছিল স্থানীয় এক টোটো চালক শেখ আনসারের সঙ্গে সে খেজুরতলাতে রয়েছে।

এরপর থেকে তার আর কোনও খবর পাওয়া যায়নি। এরপর গত তেসরা জানুয়ারি ময়না থানায় নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতেই পরিবারের তরফে নিখোঁজের সম্পর্কে অভিযোগ দায়ের করা হয়। কিন্তু পুলিশ এই ঘটনায় নির্দিষ্ট অপরাধীকে হাতে পেয়েও কোনও জিজ্ঞাসাবাদ করেনি বলে ক্ষোভ পরিবারের। ঘটনার কয়েক ঘন্টা কেটে গেলেও পুলিশ তদন্তের কোনও অগ্রগতি না করায় এলাকার মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে থানায় বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। তবে পুলিশের আশ্বাসে পরে বিক্ষোভ উঠলেও দ্রুত ঘটনার তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা না হলে আবারও বৃহত্তর আন্দোলনের পথে নামার হুমকিও দিয়েছেন স্থানীয়রা।।