কলকাতা: রাফায়েল মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে রাহুল গান্ধীর বক্তব্য ঘিরে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। তাঁকে ক্ষমা চাইতে হবে এই দাবিতে দেশজুড়ে বিক্ষোভে নামছে বিজেপি। পূর্ব-পরিকল্পিত কর্মসূচি অনুযায়ী শনিবার পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষোভে নামে বিজেপি। তবে কংগ্রেসের সদর দফতর বিধান ভবনের সামনে রীতিমত তান্ডবের ছবি উঠে এল। ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে রাহুল গান্ধীর ছবি দেওয়া ফ্লেক্স।

শনিবারের ঘটনায় প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি সোমেন মিত্র জানিয়েছেন, “এটা রাজনীতি নয়, স্টান্ট…চমক দেওয়া হচ্ছে।” এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস মহল। তবে এদিন মমতা সরকারকে কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেন, রাজ্যপালের সঙ্গে কোন সরকারের এমন কোন ঘটনা আগে দেখিনি, খুবই অবাক করা।

৮ নভেম্বর রাফায়েল ইস্যুতে রায় ঘোষণা করেছে দেশের শীর্ষ আদালত। এই মামলার আর্জি খারিজ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট জানায়, ‘আমাদের এই কথা স্মরণে রাখা উচিত যে সরকারের সঙ্গে ফরাসি সংস্থার বরাত রয়েছে। আর এর আগেও বহুবার এফআইআর আর সিবিআই তদন্ত হয়েছে। এটা নতুন তদন্ত নয়।’ যদিও রাফাল মামলা নিয়ে ভিন্ন মত পোষণ করেন বিচারপতি কে এম জোসেফ। তিনি জানান, তদন্ত সংস্থা যদি মনে করে তবে তারা তদন্তে এগোতেই পারে।

বৃহস্পতিবারই টুইট করে এই রায়কে তদন্তের ক্ষেত্রে ‘নতুন পথ’ বলেই মনে করছেন তিনি। রাফায়েলের এই রায় দুর্নীতির তদন্তে নতুন রাস্তা খুলে যাবে বলেই মনে করছেন রাহুল। রাফায়েল তদন্তে যৌথ সংসদীয় কমিটি গঠনের কথাও বলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে রাহুল গান্ধী এবং কংগ্রেসকে তীব্র আক্রমণ করেছে বিজেপি। রাফায়েল রায়ের পর রাহুল গান্ধীকে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ।

কিছুক্ষণের মধ্যেই মুখ খোলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। রাহুল গান্ধীকে নিশানা করে তিনি এই রাফায়েল মামলাকে ‘কংগ্রেসের কুৎসা এবং অপপ্রচার’ বলে তোপ দাগেন। এখানেই থেমে থাকেননি বিজেপির সভাপতি।

ট্যুইট করে তিনি লেখেন, ‘সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ে প্রমাণিত হল রাফায়েল মামলা আদতে মিথ্যা ছাড়া আর কিছুই নয়। সংসদে আমরা যে সময় রাফায়েলের পিছনে ব্যয় করেছি সেই সময়টুকু মানুষের স্বার্থে ব্যয় করলে সাধারণ মানুষের উপকার হত।’ শুক্রবার থেকেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয়েছে বিজেপির অবস্থান। তবে শনিবার তা আরও বড় আকার ধারণ করবে তা জানিয়েছিল। বিভিন্ন স্তরে পৌঁছে যাবে তাঁদের বার্তা। এমনটাই জানা গিয়েছে বিজেপি সূত্রে।