ফাইল ছবি

লখনউ: ফের বড়সড় দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করল পুলিশ৷ সোমবার রাতে খবর পেয়ে লখনউয়ের স্নো হোয়াইট হোটেলে হানা দিয়ে পাঁচ পুরুষ এবং তিন মহিলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ বাজেয়াপ্ত করা হয় বহু আপত্তিজনক সামগ্রী৷ হোটেলেকর মালিককেও পুলিশ গ্রেফতার করেছে বলে জানা গিয়েছে৷

সূত্রের খবর, হোটেল স্নো হোয়াইট পুলিশ আচমকাই হানা দিয়ে অশ্লীল অবস্থায় ধরে ফেলে অভিযুক্তদের৷ জানা যায়, হোয়াটস্ অ্যাপের মাধ্যমে মহিলাদের ছবি পাঠিয়ে গ্রাহকদের সঙ্গে দরদমা চলত৷ মহিলা পছন্দ হলে, গ্রাহকের থেকে অ্যাডভান্সও নেওয়া হত৷ পুলিশ জানায়, এই দেহব্যবসার কাজে প্রদান অভিযুক্তের মোবাইলে পঞ্জাব, দিল্লি, নয়ডা, নেপাল এবং বাংলাদেশের মেয়েদের নম্বর পাওয়া গিয়েছে৷

এর কিছুদিন আগেই, দেহব্যবসায় মডেলকে জোর করার অভিযোগে হাতেনাতে ধরা পড়ে ২ ব্যক্তি৷ পুণের কোরেগাও পার্কের একটি হোটেলে হানা দিয়েই অভিযুক্তদের ধরে ফেলে পুলিশ৷ জানা যায়, নয়াদিল্লির ওই মহিলা আমেরিকা জন্মগ্রহণ করেন৷ তিনি পেশায় মডেল৷ বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপনে তাকে দেখাও গিয়েছে৷ চারদিন আগে উত্তরপ্রদেশের এই ২ ব্যক্তির সঙ্গে তিনি পুণে এসেছিলেন৷

অভিযোগ, তাকে পুণের হোটেলের রুমে জোর করে দেহব্যবসার কাজে নামতে বাধ্য করছিল ওই দুই ব্যক্তি৷ এদিকে এই ব্যবসার খবর গোপন সূত্রে পেয়ে হোটেলে হানা দেয় পুলিশ৷ সেখানেই ওই ২জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ, এবং বছর একত্রিশের ওই মডেলকে উদ্ধার করে হোমে পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ হোটেলের রুম থেকে চারটি সেলফোন এবং ৭,০০০টাকা উদ্ধার হয়েছে৷ ধৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷