ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: ফের দেহব্যবসার পর্দাফাঁস করল পুলিশ৷ দিল্লি কমিশন ফর উওমেন এবং পুলিশের যৌথ অভিযানে দিল্লির অমন বিহার থেকে চার জনকে গ্রেফতার করা হয়৷ উএমেনস হেলপলাইন ১৮১-তে এই দেহব্যবসা চালানোর অভিযোগ ফোন আসে, এই খবর পেয়েই ডিসিডব্লিউ এবং পুলিশের যৌথ দল বৃহস্পতিবার সাতসকালে সেখানে উপস্থিত হয়৷ এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়৷

সকাল ১০.৩০ মিনিট নাগাদ চার মহিলাকে ওই বাড়িটির মধ্যে ঢুকতেও দেখা যায়৷ তাদের মধ্যে একজন ১৫ মিনিট পরেই বাড়িটি থেকে বেরিয়ে আসে৷ তারপরেই স্কুটার-বাইকে করে অনেকেই সেখানে আসতে শুরু করে৷ বাড়ির মধ্যে ঢোকার আগে তাদের ফোনে কথা বলতেও দেখা যায়৷

ডিসিডব্লিউ টিম পুলিশকে খবর দেয়৷ দুপুরেই সেই বাড়িতে হানা দেয় জয়েন্ট টিম৷ বাড়ির মধ্যে ৬-৭ পুরুষ এবং ৩ মহিলাকে পাওয়া যায়৷ হাতেনাতে ধরা পড়ে তারা৷ ধরা পড়ে বাড়ির মালিক গৌতমও৷

ফাইল ছবি

ডিসিডব্লিউ টিম সকলকে অমন বিহার পুলিশ স্টেশনে নিয়ে আসে৷ মহিলারা জানায় তারা প্রাপ্তবয়স্ক এবং নিজেদের ইচ্ছেতেই এই দেহব্যবসার নেমেছে তারা৷ তারা আরও জানায়, প্রতিটি খদ্দেরের জন্য তারা ২৫০ টাকা করে পায় এবং দিন কম করে সাত জনের সঙ্গে দেহব্যবসার কাজে লিপ্ত হয় তারা৷ এদেরই মধ্যে একজন জানায় সে অনাথ এবং স্বামীর অত্যাচারের শিকার হয়ে এই পথ বেছে নিয়েছে৷ আরেকজন অসমীয়া মহিলা পুলিশের কাছে মুখ খোলেনি৷