কলকাতা: স্কুল ভেঙে ফেলার অভিযোগ উঠল প্রমোটারের বিরুদ্ধে। ঘটনাস্থল উত্তর শহরতলির বাগুইহাটি থানা এলাকা। অভিযোগ শুক্রবার গভীর রাতে প্রচুর লোকজন নিয়ে এসে ভাঙচুর করা হয় বাগুইহাটির ওই স্কুলটিতে। বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করতে গেলে মারধর করা হয় স্কুলের প্রধান শিক্ষককে।

শনিবার সকালে পড়ুয়ারা স্কুলে গিয়ে দেখে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে স্কুল বাড়ি। ভেঙে ফেলা হয়েছে স্কুলের ছাদ, বহু আসবাব। তাণ্ডব চালানো হয়েছে স্কুলের অফিস ঘরে। এই ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করেন বিক্ষুব্ধ অভিভাবকেরা। ঘণ্টাখেনক পরে চিনার পার্ক এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত প্রমোটার মজিউর রহমানকে। জানা গিয়েছে, প্রমোটিং-এর জন্য স্কুলের মালিকের থেকে স্কুল সহ জমিটি কিনে নিয়েছিল অভিযুক্ত মজিউর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।