স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করার অভিযোগ উঠল এলাকার এক প্রোমোটারের বিরুদ্ধে৷ শুধু তাই নয়, কর্ম সংস্থান করে দেওয়ার প্রতিশ্রতি পূরণ না করায় প্রতারনারও অভিযোগ দায়ের করা হল ওই প্রোমোটারের বিরুদ্ধে৷ উত্তর ২৪ পরগনার বেলঘরিয়া নওদাপাড়া এলাকার ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ অভিযুক্ত ওই প্রোমোটারের নাম জয়ন্ত ঘোষ ওরফে রাজু।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাতে ওই প্রোমোটারের বিরুদ্ধে বেলঘরিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতা ওই যুবতীর অভিভাবকরা। অভিযোগ, রাজুর সঙ্গে এক বছর ধরে সম্পর্ক তৈরি হয় ওই যুবতীর। এমনকি ওই যুবতীর মা রাজুকে তাঁর মেয়ের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন৷ তখন থেকেই তিনি বুঝতে পারেন তাঁর মেয়ের সঙ্গে প্রতিবেশী প্রোমোটার রাজুর শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে। রাজুর বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে ওই যুবতীর মাকে কাজের ব্যবস্থা করে দেবে বলে প্রতিশ্রতি দিয়েছিল। কিন্তু যখনই কাজের প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হত তখনই সে বিষয়টিকে এড়িয়ে যেত৷

আরও পড়ুন: প্রত্যেকদিন মেট্রোতে চড়তে হয়? তাহলে অবশ্যই পড়ুন

তবে দীর্ঘদিন ধরে ওই নির্যাতিতা যুবতীর সঙ্গে সহবাসের পর তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করলে বিষয়টি আরও তিক্ত পর্যায়ে পৌঁছায়৷ অভিযোগ, ওই যুবতীর পরিবার তাকে বিয়ে করতে বললে রাজু পুরনো সব সম্পর্ক অস্বীকার করে। কিছুদিন আগে বেলঘরিয়া থানায় অভিযুক্ত রাজুর বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগে একটি অভিযোগ দায়ের করেন ওই যুবতীর পরিবার। কিন্তু যুবতীর মায়ের পাল্টা অভিযোগ, পুলিশ রাজুকে গ্রেফতার করেনি৷ উল্টে থানায় কেন গিয়েছে ওই নাবালিকার পরিবার সেই বিষয়ে পাল্টা খুনের হুমকি দেয় অভিযুক্ত প্রোমোটার রাজু।

বর্তমানে আতঙ্কে দৈনন্দিন কাজকর্মে বাইরে বেরতে ভয় পাচ্ছে ওই নির্যাতিতা ও তার পরিবারের সদস্যরা। নির্যাতিতা যুবতীর মা বলেন, ‘‘রাজু আমাদের পরিবারের সবাইকে খুন করবে বলেছে। আমার ছেলেটা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে। পুলিশের উচিৎ ওকে গ্রেফতার করা। ওর কঠোর শাস্তি চাইছি আমরা।’’ ইতিমধ্যেই বেলঘরিয়া থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত রাজু৷

আরও পড়ুন: উপত্যকায় দু’দিনের বনধের ডাক বিচ্ছিন্নতাবাদীদের, স্থগিত অমরনাথ যাত্রা

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ