লখনউ: অবশেষে জল্পনার অবসান৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশের বারাণসী থেকে লড়ছেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ও লোকসভা ভোটে দলের অন্যতম তুরুপের তাস প্রিয়াঙ্কা গান্ধী৷ সূত্রের খবর আগামি ২৯ এপ্রিল মনোনয়ন পত্র জমা দেবেন তিনি৷

সূত্রের খবর কাল ভৈরব মন্দিরে পূজো দিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দেবেন প্রিয়াঙ্কা৷ প্রিয়াঙ্কা লড়লে সপা-বসপা-আরএলডি জোটের প্রার্থী মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নেবেন বলে খবর৷ ফলে জোটের ভোট কংগ্রেসের দিকেই যেতে পারে৷ উল্লেখ্য, জোটের প্রার্থী হিসেবে সোমবার শালিনী যাদবকে দাঁড় করানো হয়েছিল৷

প্রিয়াঙ্কা লড়বেন কিনা তা নিয়ে রীতিমত জল্পনা চলছিল রাজনৈতিক মহলে৷ কংগ্রেস তাঁদের শেষ মুহুর্তের তুরুপের তাসকে কীভাবে ব্যবহার করবে তা নিয়ে প্রশ্ন ছিল৷ কারণ প্রচারে বেড়িয়ে কংগ্রেসের পালে বেশ কিছুটা হাওয়া টানতে পেরেছিলেন প্রিয়াঙ্কা বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা৷ সেই হাওয়াকে ভোটবাক্সে টানতে প্রিয়াঙ্কাকে যে প্রার্থী করা হতে পারে, সে বিষয়ে এবার নিশ্চয়তা মিলল৷

মঙ্গলবারই প্রিয়াঙ্কা এক সাংবাদিক বৈঠকে এই বিষয়ে ইঙ্গিত দেন৷ তিনি বলেন দল চাইলে তিনি লড়তে রাজী৷ দলকে সবরকম সাহায্য করতেই তিনি প্রস্তুত৷ গত মাসে শোনা গিয়েছিল রায়বরেলি থেকে লড়তে পারেন প্রিয়াঙ্কা৷ তবে সেই জল্পনা উড়িয়ে নিজেই বলেন বারাণসী থেকে কেন নয়?৷ ১৯শে মে বারাণসী কেন্দ্রে নির্বাচন৷

প্রিয়াঙ্কা বলেছিলেন পুরোটাই দলের ইচ্ছা মেনে হবে৷ এই বিষয়ে দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, তাই হবে৷ আমেঠিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এই তথ্য তুলে ধরেন প্রিয়াঙ্কা৷ সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে খবর ছিল তিনি নিজে এব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্ত না নিলেও, দলের নির্দেশই তাঁর কাছে শেষ কথা হবে৷

তবে রাজীব তনয়ার রাজনীতিতে পা রাখাকে বিশেষ আমল দিতে নারাজ বিজেপি৷ দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের মতে, প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বিজেপির কাছে কোনও ‘বিগ ডিল’ নন৷ তাঁর আশা, গত লোকসভা নির্বাচনের থেকে অনেক বেশি আসন পাবে এনডিএ৷ অমিত শাহ বুঝিয়ে দেন তারা প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে নারাজ৷ বলেন, ‘‘প্রিয়াঙ্কা ঠোঁটে লিপস্টিক লাগিয়ে পানীয় জল খাচ্ছেন৷ মিডিয়া সব কিছু কভার করছে৷ ১২ বছর ধরে তিনি রাজনীতি করছেন৷ এটা তাঁর ১৩ বছর৷ ফলে তিনি বিজেপির কাছে খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ নন৷’’