নিউইয়র্ক: একসঙ্গে দুটো বছর কাটিয়ে ফেললেন অভিনেত্রী প্রিয়ঙ্কা চোপড়া ও মার্কিন পপ তারকা নিক জোনাস। মাত্র তিনদিন প্রিয়ঙ্কার সঙ্গে দেখা করি নিজের মাকে গিয়ে নিক বলেছিলেন, জীবনের সেই বিশেষ একজনকে তিনি পেয়ে গিয়েছেন। এর ঠিক দু মাসের মাথায় অভিনেত্রীকে নিজের মনের কথা জানিয়েছিলেন তিনি। এরপরে ২০১৮- র ১ ও ২ ডিসেম্বর বিয়ে করেন প্রিয়ঙ্কা ও নিক।

দুবছর একসঙ্গে থেকে বেডরুমে নিকের একটি বদ অভ্যাস সম্পর্কে জানতে পেরেছেন প্রিয়ঙ্কা। সেই গোপন তথ্য নিজেই এক সংবাদমাধ্যম এর কাছে ফাঁস করেছিলেন পিগি চপস। প্রিয়ঙ্কা জানিয়েছিলেন, তিনি ঘুম থেকে ওঠার পরে তাঁর মুখের দিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকেন নিক। মেকআপ হীন মুখে একটু ক্রিম আর মাসকারা লাগাতে চাইলে, প্রিয়াঙ্কাকে সে সুযোগও দেন না নিক।

প্রিয়ঙ্কা বলছেন, “এটা আসলে খুবই বিরক্তিকর। কিন্তু আমি ঘুম থেকে ওঠার পরে, ও জোর করে আমার মুখের দিকে তাকিয়ে থাকে। আমি বলি যে দাঁড়াও একটু মাশকারা আর ক্রিম লাগিয়ে নিতে দাও। এখন আমার চোখ মুখ আধা ঘুমন্ত অবস্থায়। কিন্তু ও তো ….!”

বিরক্ত বোধ করলেও নিকের এই খুনসুটি পছন্দ করেন প্রিয়ঙ্কা। তিনি বলছেন, “বিষয়টা খুব মিষ্টি। স্বামীর থেকে এটাই তো সকলে চায়। কিন্তু এটা একটু অদ্ভুত ও। কিন্তু ও তো বলতেই থাকে, আমায় তোমার মুখের দিকে তাকিয়ে থাকতে দাও। তুমি তো এখনও ঘুম থেকেই ঠিক ভাবে ওঠোনি।”

প্রসঙ্গত দু’বছর আগে রাজকীয় কায়দায় বিয়ে করেছিলেন প্রিয়ঙ্কা ও নিক জোনাস। রূপকথার মতো সেই বিয়ের বিভিন্ন ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছিল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।