আলুর: ফিল্ডিং করার সময় ঘাড়ে বল লাগায় হাসপাতালে নিয়ে যেতে হল ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটার প্রিয়ম গর্গকে৷ যদিও যুব দলের হয়ে নয়, গর্গ মাঠে নেমেছিলেন দলীপ ট্রফিতে ইন্ডিয়া গ্রিন দলের হয়ে৷

আলুরে ইন্ডিয়া রেড বনাম ইন্ডিয়া গ্রিন দলের ম্যাচের শেষ দিনে চোট পান ইতিমধ্যেই যুব দলকে নেতৃত্ব দেওয়া প্রিয়ম৷ বাংলাদেশ সফরে অনূর্ধ্ব-২৩ ভারতীয় দলকেও নেতৃত্ব দেওয়ার কথা তাঁর৷ ইন্ডিয়া রেড ইনিংসের ১৩৮তম ওভারে দূর্ঘটনাটি ঘটে৷ রাহুল চাহারের বলে আবেশ খান পাঞ্চ করলে সিলি পয়েন্টে দাঁড়ানো প্রিয়মের হেলমেটের পিছন দিকে সরাসরি বল লাগে৷ হেলমেডের নেক গার্ড ছিটকে যায় বলের আঘাতে৷

আরও পড়ুন: ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফলো-অনের লজ্জা থেকে মুক্তি দিল ভারত

জ্ঞান না-হারালেও রীতিমতো যন্ত্রণাকাতর দেখায় প্রিয়মকে৷ তৎক্ষণাৎ ঘাড়ে আইসপ্যাক লাগালেও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে তড়িঘড়ি অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় প্রিয়মকে৷

ম্যাচে গ্রিন দল প্রথম ইনিংসের নিরিখে মাত্র ১ রানে পিছিয়ে পড়ে৷ যদিও তাতে বিশেষ ক্ষতি হয়নি তাদের৷ রেড দল দু’টি ম্যাচে প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থেকে ফাইনালে জায়গা করে নেয়৷ ব্লু’দলের থেকে রান-রেটে এগিয়ে থেকে দলীপ ট্রফির ফাইনালের টিকিট পেয়ে যায় গ্রিন দলও৷ অর্থাৎ চিন্নাস্বামীর ফাইনালে এই দু’দলই মুখোমুখি লড়াইয়ে নামবে৷

আরও পড়ুন: তিন দিনেই ইনিংসে জয় অস্ট্রেলিয়ার

ইন্ডিয়া গ্রিন দলের ৪৪০ রানের জবাবে রেড দল তাদের প্রথম ইনিংস শেষ করে ৪৪১ রানে৷ মহীপাল লোমরোর ১২৬ রান করেন৷ আবেশ খান ২টি চার ও ৭টি ছক্কার সাহায্যে ৫৬ বলে ৬৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে রেড দলকে ১ রানের সংক্ষিপ্ত লিড এনে দিতে সাহায্য করেন৷

নিয়মরক্ষার দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে গ্রিন দল ৩ উইকেটে ৯৮ রান তুললে ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয়৷ ধ্রুব শোরে ৪৪ রানে অপরাজিত থাকেন৷

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।