তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: লকডাউনের মধ্যেও সোমবার থেকে রাজ্যে আংশিকভাবে বেসরকারি বাস চলাচলের ছাড়পত্র দিয়েছে রাজ্য পরিবহন দফতর। রাজ্যের প্রস্তাব অনুযায়ী, পঞ্চাশ জন যাত্রী নিয়ে বাস রাস্তায় নামানো সম্ভব নয়, আগেই জানিয়েছিলেন বাস মালিকরা।

বিভিন্ন রুটে হাতে গোনা কয়েকটি সরকারি বাস চলাচল করলেও জেলার একটা বড় অংশের গ্রামীণ এলাকা এখনো সেই পরিষেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। কারণ, জেলায় চলাচল করা পাঁচশোর বেশী বেসরকারি বাসই বাঁকুড়াবাসীর অন্যতম ভরসার জায়গা।

মাত্র ২০ জন যাত্রী নিয়ে পুরোনো ভাড়ায় বাস চালানো একেবারেই অসম্ভব। এমনই জানিয়েছেন সিংহভাগ বাস মালিক। ফলে আগামী সোমবার থেকে এই জেলায় কোন বেসরকারী বাস রাস্তায় নামবে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

বাঁকুড়া বাস মালিক কল্যাণ সমিতির সম্পাদক সুকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, রাজ্য সরকারে শর্তসাপেক্ষে মাত্র কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে আন্তঃজেলা বেসরকারি বাস চালানো সম্ভব নয়।

হাতে গোনা ওই যাত্রী নিয়ে বাস চালালে যে পরিমান আর্থিক ক্ষতি হবে তা সামলানো তাঁদের পক্ষে অসম্ভব। সেকারণে আগামী সোমবার কোনও বাস পথে নামবেনা বলে তিনি স্পষ্টতই জানিয়ে দিয়েছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.