নয়াদিল্লি: করোনা গ্রাসে দেশ। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে রাজ্যে-রাজ্যে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ঘোর উদ্বেগে কেন্দ্রীয় সরকার। সংক্রমণ মোকাবিলায় আরও কী কী পদক্ষেপ জরুরি? সেব্যাপারে স্বাস্থ্যসচিব-সহ একাধিক মন্ত্রকের শীর্ষ প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা সারলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এরপর আজ বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ ফের দেশের প্রখ্যাত চিকিৎসকদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবেন মোদী। সন্ধে ৬টায় দেশের নামী ওষুধ সংস্থাগুলির কর্ণধারদের সঙ্গেও ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনার গ্রাসে গোটা দেশ। মারণ বাইরাস হু হু করে ছড়াচ্ছে রাজ্যে-রাজ্যে। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে তোলপাড় গোটা ভারত। একাধিক রাজ্যের পরিস্থিতি সঙ্গীন। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে বেশ কয়েকটি রাজ্যে জারি লকডাউন, নাইট কারফিউ। করোনা মোকাবিলায় নিয়ে কয়েকদিনের ব্যবধানে ফের আজ কেন্দ্রের স্বাস্থ্যসচিব-সহ একাধিক মন্ত্রকের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে দ্রুত করোনা পরীক্ষা করা ও সংক্রমিতকে খুঁজে বের করার ব্যাপারে জোর দেওয়া হয়েছে। সংক্রমিতদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদেরও দ্রুত শনাক্ত করে তাঁদের আইসোলেশনে রাখা ও করোনা পরীক্ষা করানোর ব্যাপারে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ করা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে। রাজ্যগুলির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্র তৎপর হয়েছে। এব্যাপারে কেন্দ্রের প্রশাসনিক কর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সকাল সাড়ে ১১টায় কেন্দ্রের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পরেই আজ বিকেলে ফের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী। দেশে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে চিকিৎসকদের পরামর্শ চায় কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে এব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছেন। খ্যাতনামা চিকিৎসকদের সঙ্গে আজ বিকেল সাড়ে ৪টে নাগাদ বৈঠক করবেন মোদী।

করোনা মোকাবিলায় চিকিৎসকদের পরামর্শ শুনে পরবর্তী পদক্ষেপ করতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার। চিকিৎসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠকের পর আজ সন্ধে ৬টায় ফের বৈঠক করবেন মোদী। দেশের নামী ওষুধ সংস্থাগুলির কর্ণধারদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী। জরুরি ভিত্তিতে করোনা মোকাবিলা প্রয়োজনী ওষুধ তৈরি ও সরবরাহের ব্যাপারে আলোচনা হবে ওই বৈঠকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.